পরীক্ষামূলক প্রচার...
Mohajog-Logo
,
সংবাদ শিরোনাম :

শিক্ষককে হত্যার পর স্কুলছাত্রের আত্মহত্যা

গুলি করে স্কুলশিক্ষককে হত্যা করেছে ১১ বছর বয়সী এক ছাত্র। তার বন্দুকের এলাপাতাড়ি গুলিতে আহত হয়েছেন আরো ছয়জন। পরে মাথায় গুলি চালিয়ে নিজেও আত্মহত্যা করে ওই শিশুটি। শুক্রবার এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে ল্যাটিন আমেরিকার দেশ মেক্সিকোর এক বেসরকারি স্কুলে। তাৎক্ষণিকভাবে এই হত্যার কারণ জানা যায়নি।

মেক্সিকোতে মাদক গোষ্ঠীগুলোর মধ্যে এ ধরনের বন্দুক হামলার ঘটনা নিত্যনৈমিত্তিক হলেও স্কুলে গোলাগুলির ঘটনা খুবই বিরল।

ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসি জানায়, মেক্সিকোর কোয়াহুইলা রাজ্যের তরেয়ন শহরে কলেজিও সেরভানটেস নামে একটি বেসরকারি স্কুলে স্থানীয় সময় শুক্রবার সকাল ৯টায় এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। ওই ছাত্রটি হঠাৎ করে কোত্থেকে যেন দুটি বন্দুক নিয়ে এসে স্কুলে এলোপাতাড়ি গুলি চালাতে শুরু করে।

কোয়াহুইলা রাজ্যের গভর্নর মিগুয়াল অ্যাঞ্জেল রিক্যুয়েলমে জানান, ওই হামলায় স্কুলের শারীরিক প্রশিক্ষণ বিষয়ক শিক্ষক নিহত হয়েছেন। তবে তার বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি। এ ঘটনায় কমপক্ষে আরো ছয়জন আহত হয়েছে। আহতদের পাঁচজনই ওই স্কুলের ছাত্র। তাদের স্থানীয় এক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং তাদের অবস্থা স্থিতিশীলত রয়েছে।

কী কারণে ওই ছাত্রটি এই ভয়াবহ হামলা চালালো তাৎক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি। তবে শহরের মেয়র জানন, হামলার সময় ছাত্রটির গায়ে ভিডিও গেম ‘ন্যাচারাল সিলেকশন’য়ের নাম লেখা টি শার্ট ছিলো।

দেশটির টিভি চ্যানেল মিলেনিওকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে শহরটির মেয়র মিগুয়াল অ্যাঞ্জেল বলেন, ছাত্রটি অত্যন্ত মেধাবী ও শান্ত স্বভাবের ছিল। সে তার দাদির সঙ্গে থাকতো। কিন্তু হঠাৎ করে সে কেন স্কুলে গিয়ে হামলা চালালো তা বোধগম্য নয়। তার বাবা-মাকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে পুলিশ।

তবে শুক্রবার ছেলেটা যে হামলা চালানোর প্রস্তুতি নিয়েই স্কুলে গিয়েছিলো তা নিশ্চিত। কেননা হামলার আগে সে তার কয়েকজন সহপাঠীকে বলেছিলো, ‘আজই সেই দিন।’ এরপর সে বাথরুমে যাওয়ার কথা বলে ক্লাস থেকে বেরিয়ে যায়। ১৫ মিনিট পর ছাত্রটিকে খুঁজতে যান ওই শিক্ষক। এরপরই সেই শিক্ষকের ওপর গুলি চালাতে শুরু করে ছাত্রটি। এতে ঘটনাস্থলেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন ওই শিক্ষক।

 

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *