পরীক্ষামূলক প্রচার...
Mohajog-Logo
,
সংবাদ শিরোনাম :

এমপিও নিয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ‘শিক্ষার উন্নয়নে বর্তমান সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। বছরের প্রথম দিনে সারা দেশের শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যে ৩৫ কোটি বই পৌঁছে দেয়া হয়েছে, সম্প্রতি ২ হাজার ৭৩০টি বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে নিরপেক্ষভাবে নীতিমালা অনুসরণ করে এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। আর এটা এখন চলতেই থাকবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ব্যাপক অবকাঠামো উন্নয়নও করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘পরীক্ষায় শুধু ভালো ফলাফল করলেই হবে না, শিক্ষার্থীদের ভালো মানুষ হতে হবে। ২১ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের উপযোগী করে শিক্ষার্থীদের গড়ে তুলতে হবে। এই লক্ষ্যে শিক্ষার্থীদের যোগাযোগ দক্ষতা, চিন্তার দক্ষতা এবং সমস্যা সমাধানের দক্ষতার উপযোগী হয়ে উঠতে হবে।’

গত রোববার দুপুরে নাটোরের গুরুদাসপুর সরকারি মডেল পাইলট উচ্চবিদ্যালয় প্রাঙ্গণে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন কল্লোল ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে গুরুদাসপুর ও বড়াইগ্রাম উপজেলার এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত কৃতী শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ সব কথা বলেন।

তিনি বলেন, শুধু জিপিএ-৫ অর্জন একমাত্র উদ্দেশ্য হতে পারে না। পড়াশুনার পাশাপাশি সামাজিক সচেতন মানুষ হিসেবে বড় হতে হবে। মানবিক মূল্যবোধ, অন্যের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, সহমর্মিতা, যুক্তিবাদিতা ও দেশপ্রেমের গুণাবলীতে শিক্ষার্থীদের সমৃদ্ধ হতে হবে। আমাদের উচিত হবে তাদের স্বতন্ত্র প্রতিভা বিকাশের উপযোগী পরিবেশ তৈরি করে দেয়া। মানসম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করার মাধ্যমে বর্তমান সরকার এই লক্ষ্য পূরণে কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘বর্তমান সরকারের ১০ বছরের অর্জনের ওপর দাঁড়িয়ে শিক্ষা কারিকুলামকে যুগোপযোগী করা হয়েছে। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি শিক্ষার সম্প্রসারণে আমরা কাজ করছি। শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ করে গড়ে তোলা হচ্ছে। প্রাথমিক থেকে উচ্চতম শিক্ষা পর্যন্ত শিক্ষাবৃত্তির পরিধি বাড়ানো হয়েছে।’

‘দুর্বল শিক্ষার্থীদের এগিয়ে নিতে, ভর্তি পরীক্ষা, বিদেশ গমনের প্রয়োজনে কোচিং প্রয়োজন হলেও ক্লাসে না পড়িয়ে কোচিং বাণিজ্য কোনোক্রমেই গ্রহণযোগ্য নয়। কোচিং বাণিজ্য, নোট বই-গাইড বইকে কোনো ছাড় নয়। এ সব বন্ধে স্থানীয় প্রশাসনকে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলেন’ শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি আরও বলেন, ‘বর্তমান সরকারের বিগত ১০ বছরের পথচলা এবং অতীতের ইতিহাস-ঐতিহ্যের ওপর দাঁড়িয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে সমৃদ্ধির পথে দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। ২০৩০ সালের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা, ২০৪১ সালের সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ এবং ২০২১ সালের ব-দ্বীপ পরিকল্পনা বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে আমার সেই অভীষ্ট লক্ষ্যে উপনীত হব। আজকের শিক্ষার্থীরাই বঙ্গবন্ধুর আজন্ম লালিত সোনার বাংলা গড়ে তুলবে।’

ফাউন্ডেশনের সভাপতি অ্যাডভোকেট কোহেলী কুদ্দুস মুক্তির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক আবদুল কুদ্দুস। বিশেষ অতিথি ছিলেন- বরিশাল অঞ্চলের সংরক্ষিত এমপি সৈয়দা রুবিনা আক্তার মীরা, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সাইদুর রহমান, জেলা প্রশাসক মো. শাহরিয়াজ, পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রমজান আলী আকন্দ, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মিল্টন উদ্দিন, দাতা সদস্য আসিফ আবদুল্লাহ শোভন বিন কুদ্দুস, কৃতী শিক্ষার্থী ইসমত আরা বকুল ও প্রভাত কুণ্ডু।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে গুরুদাসপুর ও বড়াইগ্রাম উপজেলার ২০১৮-২০১৯ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় জি পি এ-৫ প্রাপ্ত ৬৬৪ জন কৃতী শিক্ষার্থীর হাতে ক্রেস্ট, সম্মাননা পত্র, ব্যাগ ও বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী বই তুলে দেয়া হয়। একই সঙ্গে পিইসি ও জেএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্তদের মধ্য থেকে ২০ জন কৃতী শিক্ষার্থীকে পরীক্ষার মাধ্যমে আবদুল কুদ্দুস ও রওশনারা বৃত্তি প্রদান করা হয়।

এর আগে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ৮৫ লাখ টাকা ব্যয়ে বঙ্গবন্ধু টেকনিক্যাল বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি এন্ড বি এম ইন্সটিটিউটের চারতলা ভিত বিশিষ্ট একতলা একাডেমিক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তরও স্থাপন করেন।

 

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *