পরীক্ষামূলক প্রচার...
Mohajog-Logo
,
সংবাদ শিরোনাম :

অবসরে প্রেমিকা দিয়ে চুল কাটালেন রোনালদো

করোনা ভাইরাসের জেরে এই মুহূর্তে ঘরবন্দি গোটা বিশ্ব। সংক্রমণ থেকে বাঁচতে চলছে লকডাউন। মন্ত্র একটাই স্টে হোম। বিশ্বের তাবড় তাবড় ক্রীড়া ব্যক্তত্বরাও বর্তমানে গৃহবন্দী। সময় কাটাতে করতে হচ্ছে নানা রকম কাজ। কিন্তু যেইসব ক্রীড়া ব্যক্তিত্বরা স্টাইল সচেতন, তাদের পক্ষে সময়টা আরও কঠিন। কারণ লকডাউনের জেরে বন্ধ সমস্ত পার্লার, সেলুন। তেমনই একজন হলে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।

বিশ্বের ক্রীড়াবিদদের মতো তিনিও এখন হোম কোয়ারেন্টাইনে। কিন্তু চুলের স্টাইল নিয়ে বরাবরই খুঁতখুঁতে সিআরসেভেন। শোনা যায় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে খেলার সময় থেকে প্রতি সপ্তাহে ম্যাচের আগে নাপিতের দ্বারস্থ হতেন তিনি। ম্যানইউ ছেড়ে রিয়াল মাদ্রিদে নয় বছর কাটিয়ে এখন যোগ দিয়েছেন জুভেন্টাসে, চুল কাটার সে রীতি চালু আছে এখনও। কিন্তু চুলের বৃদ্ধিতে লকডউন মানে না। অগ্যতা ‘নেই মামার থেকে কানা মামা ভাল’ পন্থাই অনুসরণ করলেন পর্তুগীজ তারকা। হেয়ার কাট করতে বান্ধবী জর্জিনার শরণাপন্ন হলেন জুভেন্টাস তারকা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ারও করলেন নিজের হেয়ার কাটের ভিডিও।

চুলের স্টাইল নিয়ে যে তিনি একদমই আপস করতে রাজি নন। তাই তো বান্ধবী জর্জিনা রড্রিগেজকে নাপিত বানিয়ে বেশ করে চুল কেটে নিয়েছেন ঘরবন্দী রোনালদো। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করা ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, রোনালদোকে একটি চেয়ারে বসিয়ে হেয়ার ড্রেসারের ভূমিকা নিয়েছেন জর্জিনা। একটি হুডি জ্যাকেট পরে জর্জিনা একদম পাকা হেয়ার ড্রেসারের মতো ইলেকট্রিক ট্রিমার দিয়ে রোনালদোর চুল মেপে মেপে কেটে দিচ্ছিলেন। ভিডিওর ক্যাপশন হিসেবে লিখেছেন, ‘জিও’র হেয়ারস্টাইল।’ ভিডিওটি নিজের টুইটার হ্যান্ডেলেও পোস্ট করেছেন সিআরসেভেন।

এর আগে ঘরবন্দী অবস্থায় স্ত্রী আনুশকা শর্মাকে দিয়ে চুল কাটিয়েছিলেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তাও আবার রান্না ঘরের কাচি দিয়ে। সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করেছিলেন কোহলি-আনুশকা জুটি। যা ভাইরালও হয়েছিল। এবার বান্ধবী জর্জিনাকে দিয়ে রোনালদোর চুল কাটানোর ছবি শেয়ার করার কিছুক্ষণের মধ্যে তা ভাইরাল হয়ে যায়। তারকা ফুটবলারের পায়ের কারিকুরিতে তো বটেই, চুলের স্টাইলেও বারবার মুগ্ধ হয়েছে ফুটবল বিশ্ব। বান্ধবী জর্জিনা সেই তকমা ধরে রাখতে পারে কিনা এখন সেটাই দেখার বিষয়।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *