1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha : Sardar Dhaka
  2. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
  3. rafiqul@mohajog.com : Rafiqul Islam : Rafiqul Islam
  4. sardar@mohajog.com : Shahjahan Sardar : Shahjahan Sardar
শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১২:০৪ অপরাহ্ন

দিয়াজের শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬
  • ২৬৭ বার

প্রতিবেদক : চট্টগ্রামে রহস্যজনক ভাবে মারা যাওয়া ছাত্রলীগ নেতা দিয়াজ ইরফান চৌধুরীর শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। রবিবার দ্বিতীয় ময়নাতদন্তে এ তথ্য পাওয়ার কথা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ। তবে সেটা কিসের আঘাত, কী ধরনের আঘাত সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু বলেননি তিনি।
গত ২০ নভেম্বর রাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ নম্বর প্রবেশ গেটের সামনে অবস্থিত বাসার নিজ কক্ষ থেকে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক ও সংগঠনটির চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাবেক যুগ্ম সম্পাদক দিয়াজের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তার লাশের ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে জানানো হয়, দিয়াজ আত্মহত্যা করেছেন। এ প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে দিয়াজের পরিবার নতুন করে ময়নাতদন্তের জন্য আদালতে আবেদন জানান। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগে সেসময় প্রথম দফা ময়নাতদন্ত হয়। এ বিষয়ে হত্যা মামলাও দায়ের করেন দিয়াজের পরিবার।
পরে গত মঙ্গলবার চট্টগ্রামের একটি আদালত দিয়াজের লাশ কবর থেকে উঠিয়ে  ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের ফরেনসিক বিভাগে আবারও ময়নাতদন্ত করার নির্দেশ দেন।
এ আদেশের প্রেক্ষিতে ১০ ডিসেম্বর পুনরায় ময়নাতদন্তের জন্য দিয়াজের মরদেহ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে নিয়ে আসা হয় এবং তিন সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ডও গঠন করা হয়।
রবিবার দুপুর ২টা থেকে দিয়াজের ময়নাতদন্ত করেন ডা. সোহেল মাহমুদ, ফরেনসিক বিভাগের প্রভাষক প্রদীপ বিশ্বাস এবং কবীর সোহেল।
ময়নাতদন্ত শেষে ডা. সোহেল মাহমুদ বলেন, দিয়াজের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। আর তার দাঁত, নেক টিস্যু এবং ভিসেরা সংরক্ষণ করে সেগুলো পরীক্ষা করার জন্য পাঠানো হয়েছে। একইসঙ্গে দিয়াজের প্রথম ময়নাতদন্ত যারা করেছেন তাদের সঙ্গে কথা বলবেন এই ময়নাতদন্তকারী দল, দিয়াজের মৃত্যুর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করবেন এবং সাক্ষীদের সঙ্গেও কথা বলবেন তারা। তবে কবে তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করবেন জানতে চাইলে সোহেল মাহমুদ দিনক্ষণ নির্দিষ্ট করেননি। তবে দ্রুতই যাবেন বলে জানিয়েছেন। আর দাঁত, নেক টিস্যু এবং ভিসেরা পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়ার পরই তারা এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানাবেন বলেও জানিয়েছেন ডা. সোহেল মাহমুদ।
এদিকে, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) মর্গে দিয়াজের দ্বিতীয় ময়নাতদন্তের সময় উপস্থিত ছিলেন তার মা জাহেদা আমিন চৌধুরী ও বোন জোবাইদা সারোয়ার চৌধুরী। ময়নাতদন্তের প্রাথমিক তথ্য জানার পর তারা সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, তাদের ধারণার প্রতিফলন আছে এ তথ্যে। দিয়াজের মা জানান, তার ছেলেকে যারা হত্যা করেছে তাদের বিরুদ্ধে তিনি শেষ পর্যন্ত লড়ে যাবেন।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 Mohajog