1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
  2. mohajog@yahoo.com : Daily Mohajog : Daily Mohajog
  3. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ১০:৫৪ পূর্বাহ্ন

শুভ হোক নতুন বছর

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১ জানুয়ারী, ২০১৭
  • ১২৬ বার

আসাদ চৌধুরী : উৎসবপ্রবণ বাঙালি হিসেবে আমাদের খ্যাতি তো সব সময়ই রয়েছে। দেশে আমরা তিনটি নববর্ষ উৎযাপন করি। বাংলা, ইংরেজি ও আরবী। এর মধ্যে বাংলা বর্ষ সবচেয়ে জনপ্রিয়, সারম্ভরর্পূর্ণ এবং সর্বজনগ্রাহ্য। ইংরেজরা এখানে প্রথম ইংরেজি নববর্ষ পালন করত। পরে তাদের দেখে ইয়াং বেঙ্গলের তরুণরা নতুন বছর পালনের উদ্যোগ নেয়। ইয়াং বেঙ্গলের তরুণরাও বাংলা নববর্ষ পালন করতে থাকে। কালক্রমে এই বাংলা নববর্ষ রবীন্দ্রনাথের হাত ধরে বাঙালি সংস্কৃতির অন্যতম ধারক ও বাহক হয়ে ওঠে। এখন এটা ইউনেসকোর ন্যাশনাল হ্যরিটেজে অর্ন্তভুক্ত হয়েছে।

বাংলার পাশাপাশি ইংরেজি বর্ষ আমাদের তরুণরা পালন করে থাকে। বলা ভালো, পশ্চিমা সংস্কৃতির হাত ধরেই এই ইংরেজি গ্রেগরীয় নববর্ষ এখানে পালিত হয়।
আমার কিন্তু এটা বেশ ভালোই লাগে। এর মধ্যে নিজেদের এক ধরণের আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলের সঙ্গে একাত্ব হতে পারা যায়। আমরা তো সারা বছরই ইংরেজি সালের তারিখ অনুযায়ি কাজ করে থাকি, তাহলে এটা পালনে অসুবিধার কোন কিছু নেই। অবশ্য আমাদের তরুণরা ঐ সংস্কৃতির অনুসরণ করতে গিয়ে কখনও কখনও উগ্রতাও দেখিয়েছে। এজন্য অবশ্য এই সময়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে একটু বেশি ধকল পোহাতে হয়। কিন্তু তাই বলে পহেলা জানুয়ারি পালন বন্ধ হয়ে থাকছে না। সবাই নিজেদের মতো করেই উৎসব পালন করছে। তেমনি এবারও হবে, সবাই নিজেদের মতো করে উৎসব করবে। বরাবরের মতো এবারও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সচেতন পাহারায় থাকবে। নতুন পহেলা জানুয়ারিকে বরণ করবো আমরা।
বিগত বছরে আমরা অনেক ক্ষেত্রেই এগিয়ে গেছি। আমি আশাবাদি মানুষ; একটু বেশিই আশাবাদি। তাই ইতিবাচক দিকটাই প্রথমে বলতে চাই- ২০১৬ সালের নারীর ক্ষমতায়নে আমরা এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে এগিয়ে গেছি। অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে ব্যাপক সাফল্যও আমাদের নিজেদের সম্ভাবনাময় করছে। বছরের সবচেয়ে আলোচিত বিষয় ছিল নিঃসন্দেহে হলি আর্টিজেন হামলা। হঠাৎই জঙ্গিবাদের এমন বিষ্ফোরণ আমাদের সবাইকে হতবাক করে দেয়। এছাড়া আন্তর্জাতিকভাবে অনেক ঘটনা আমাদের দেশীয় রাজনীতিতে, অর্থনীতিতে, বিশেষ করে গণমাধ্যমে প্রভাব বিস্তার করেছে। এখানে বিশেষ উল্লেখযোগ্য বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালি দেশের নির্বাচন। সেই নির্বাচনে একজন নতুন রাষ্ট্রপ্রধানের নির্বাচিত হওয়াই বিশ্বব্যাপি ছিল একটি আলোচিত খবর। কারণ এটা ছিল অভাবনীয়, অনেকর চিন্তার উর্ধে। আমরা যদিও প্রত্যক্ষভাবে এটার দ্বারা প্রভাবিত হব না, কিন্তু দূর থেকেও কিছুটা প্রভাব হয়ত পড়বে। এছাড়া বিশ্বের শক্তিশালী অর্থনৈতিক জোট ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বের হয়ে আসাটাও বিশ্ববাসীর জন্য বড় ধাক্কা। সারা বছরব্যাপি আলোচনার কেন্দ্রে ছিল সিরিয়া। সেখানকার উদ্বাস্ত শিশুদের মলিন মুখ আমাদের বরাবরই হতবিহ্বল করেছে। যুদ্ধের কারণে মানুষ ঘর ছেড়েছে, পথে নেমেছে, অন্য দেশে আশ্রয় প্রার্থনা করেছে। মানবিকতার এমন বিপর্যয় সত্যিই অনাকাঙ্খিত। এসব দেখে আমার কেবলি সুকান্তের কথাটি মনে পড়ে। তার মতো বলতে চাই, ‘প্রাণপণে সরাবো পৃথিবীর সব জঞ্জাল।’ আমাদের সুন্দর পৃথিবীকে আমরা শিশুর বাসযোগ্য করব। আনন্দময় করবো। প্রকৃতিকে সুন্দর করব। দেশে দেশে অমানবিক এসব যুদ্ধ বিগ্রহ বন্ধ হবে। রাজনীতি দখলদারের নোংরামি থেকে মুক্ত হবে।
এটা করতে হবে আমাদের সবাইকে নিয়ে। সব দেশ এক হয়ে, কারণ ‘পৃথিবীর আজ গভীর গভীরতর অসুখ’- এই অসুখ, জঞ্জাল আমরা সারাতে চাই। জীবনানন্দের কথাটিই শেষ কথা হিসেবে বলতে চাই। পৃথিবীর এই গভীরতর অসুখের বাতাবরণ থেকে আমরা পৃথিবীকে রক্ষা করব, একে সুন্দর আনন্দময় করব। নতুন বছরে এই হোক আমাদের চাওয়া। সবার জন্য শুভকামনা।

সুত্র : বাংলাট্রিবিউন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog