1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha : Sardar Dhaka
  2. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
  3. rafiqul@mohajog.com : Rafiqul Islam : Rafiqul Islam
  4. sardar@mohajog.com : Shahjahan Sardar : Shahjahan Sardar
মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:৫৯ পূর্বাহ্ন

রাজীব গান্ধীর হত্যার বিষয়টি পাঁচ বছর আগে আঁচ করেছিল সিআইএ

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী, ২০১৭
  • ২৯৩ বার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী হত্যাকাণ্ডের পাঁচ বছর আগেই এ বিষয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিল মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ। ১৯৮৬ সালে সংস্থাটি এ-সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন তৈরি করে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দিয়েছিল।
সম্প্রতি সিআইএ বহু নথি প্রকাশ করেছে। এ রকম একটি নথিতে রাজীব গান্ধীর হত্যাকাণ্ড-সংক্রান্ত আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়।
১৯৯১ সালে তামিলনাড়ুতে নির্বাচনী জনসভায় গিয়ে খুন হন কংগ্রেস নেতা রাজীব গান্ধী। সেই ঘটনার পাঁচ বছর আগে, অর্থাৎ ১৯৮৬ সালেই একটি প্রতিবেদন তৈরি করেছিল সিআইএ। ২৩ পাতার ওই প্রতিবেদনের শিরোনাম ছিল, ‘রাজীব-পরবর্তী ভারত…’। শিরোনামের পরবর্তী অংশ অবশ্য মুছে ফেলা হয়েছে। প্রতিবেদনে উল্লেখ ছিল, রাজীব-পরবর্তী সময়ে ভারতের রাজনৈতিক পরিস্থিতি কেমন হতে পারে। ১৯৮৬ সালের মার্চে এই রিপোর্ট তৈরি করা হয় এবং এ নিয়ে সিআইএর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মতামত চাওয়া হয়েছিল।

প্রতিবেদনের শুরুতেই বলা হয়, ‘১৯৮৯ সালে ক্ষমতার মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী আততায়ীর হাতে হত্যাকাণ্ডের শিকার হতে পারেন।’ প্রতিবেদনের শেষ ভাগে আরও স্পষ্ট করে বলা হয়, হত্যাকাণ্ডের শিকার হওয়াটাই এখন তাঁর জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি।

রাজীব গান্ধীর প্রতি হুমকি হিসেবে শনাক্ত করা হয় শিখ উগ্রবাদী ও কাশ্মীরের মুসলিম বিচ্ছিন্নতাবাদীদের। বলা হয়, যদি শিখ উগ্রবাদী কিংবা কাশ্মীরের মুসলিম বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হাতে রাজীব গান্ধী খুন হন, তাহলে ভারতে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লেগে যেতে পারে। রাজীব গান্ধীকে বাদ দিয়ে আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে কী পরিস্থিতি দাঁড়াতে পারে এবং এর ফলে ভারত-মার্কিন সম্পর্ক ও এশিয়ার রাজনীতিতে কী প্রভাব পড়তে পারে, তারও উল্লেখ ছিল প্রতিবেদনে।

যেহেতু প্রতিবেদনের উল্লেখযোগ্য অংশ মুছে ফেলা হয়েছে, তাই তামিল বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন এলটিটিইর হুমকি সম্পর্কে কোনো বক্তব্য এতে ছিল কি না, তা স্পষ্ট নয়।

রাজীবের অনুপস্থিতিতে পি ভি নরসিমা রাও অথবা ভি পি সিংয়ের মধ্যে কেউ ভারতের প্রধানমন্ত্রিত্ব করবেন, এমনটাও উল্লেখ ছিল সিআইএয়ের প্রতিবেদনে।

ক্ষমতা ছাড়ার দুই বছর পরে রাজীব গান্ধী তামিলনাড়ুতে জনসভা করতে গিয়ে খুন হন। শ্রীলঙ্কা সরকার ও তামিল বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মধ্যস্থতাই তাঁর জন্য কাল হয়েছিল পরবর্তী সময়ে। রাজীব গান্ধীর মৃত্যুর পরে নরসিমা রাও দেশের প্রধানমন্ত্রী হন।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 Mohajog