1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha : Sardar Dhaka
  2. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
  3. rafiqul@mohajog.com : Rafiqul Islam : Rafiqul Islam
  4. sardar@mohajog.com : Shahjahan Sardar : Shahjahan Sardar
রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:২৩ অপরাহ্ন

রাজধানীতে দফায় দফায় সংঘর্ষের মধ্যে বাম মোর্চার হরতাল পালিত

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭
  • ১৯৬ বার

প্রতিকেদক: রাজধানীতে দফায় দফায় সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার মধ্যে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার ডাকা অর্ধদিবস হরতাল পালিত হয়েছে।

হরতাল চলাকালে রাজধানীর শাহাবাগে সবচেয়ে বড় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। হরতাল সমর্থক প্রতগতিশীল ছাত্রজোটের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। পিকেটারদের ওপর লাঠিচার্জ, রাবারবুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পুলিশ। এতে শাহাবাগ এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। এ ঘটনায় অন্তত ২০জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার ডাকা রাজধানীতে অর্ধদিবস হরতালকে কেন্দ্র করে সকাল থেকে নগরীতে উভয় পক্ষে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষ চলে।

বেলা সাড়ে ১০টার দিকে প্রগতিশীল ছাত্রজোট হরতালের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে গিয়ে শাহাবাগে সমাবেশের  চেষ্টা করলে সেখানে পুলিশ তাদের ওপর লাঠিচার্জ, জলকামান রাবারবুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এসময় উভয় পক্ষে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষে শাহাবাগ এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলসহ (বাসদ) বাম মোর্চার ডাকা এই হরতালে সমর্থন দেয় বিএনপি। সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত চলে এই হরতাল।

রাজধানীর পুরানা পল্টন এলাকায় মঙ্গলবার সকাল ৬টা থেকে খণ্ড খণ্ড মিছিল বের করে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি), গণসংহতি, বাংলাদেশ সমাজতাস্ত্রিক দল (বাসদ), সমাজতান্ত্রিক ফন্টসহ কয়েকটি ছোট ছোট বাম দল।

মিছিলগুলো পল্টন মোড় হয়ে গুলিস্তান, দৈনিকবাংলা মোড়, প্রেসক্লাব, বিজয়নগর মোড় ঘুরে ফের পল্টন মোড়ে এসে শেষ হয়।

এসময় তারা বিভিন্ন স্থানে বিচ্ছিন্নভাবে হরতাল সমর্থনে রাস্তায় ইট দিয়ে পিকেটিং করার চেষ্টা করে। তাদের পুলিশি বাধার মুখেও পড়তে দেখা গেছে।

মঙ্গলবার স্বতঃস্ফুর্তভাবে হরতাল পালন করায় নগরবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বাম মোর্চার নেতারা।

তারা পুলিশের হামলার নিন্দা জানিয়ে সরকারের কঠোর সমালোচনা করেছেন।

প্রসঙ্গত, এর আগে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের পক্ষ থেকে দুই ধাপে মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। আগামী ১ মার্চ থেকে প্রথম দফা এবং ১ জুন থেকে দ্বিতীয় দফায় মূল্যবৃদ্ধি কার্যকর হবে।

মূল্যবৃদ্ধির ফলে আগামী ১ মার্চ থেকে আবাসিক খাতে দুই চুলার জন্য ৮০০ এবং এক চুলার জন্য ৭৫০ টাকা গুনতে হবে গ্রাহকদের। দ্বিতীয় ধাপে ১ জুন থেকে দুই চুলার জন্য ৯৫০ এবং এক চুলার জন্য ৯০০ টাকা দিতে হবে।

হঠাৎ গ্যাসের এই মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে মঙ্গলবার আধাবেলা হরতাল ডাকা হয়েছে। বিভিন্ন মহলে এ নিয়ে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। দেশের অধিকাংশ রাজনৈতিক দল গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ জানিয়েছে। সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা এর বিরুদ্ধে সোচ্চার।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 Mohajog