1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
  2. mohajog@yahoo.com : Daily Mohajog : Daily Mohajog
  3. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ০৮:১১ পূর্বাহ্ন

একজন মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর মদদে ধর্মঘট হয়েছে : ফখরুল

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১ মার্চ, ২০১৭
  • ৩১ বার

প্রতিবেদক : পরিবহন ধর্মঘটের পেছনে সরকারের একজন ‘মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী’র মদদ রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বুধবার দুপুরে এক আলোচনা সভায় তিনি বলেন, “এই পরিবহন ধর্মঘটের পেছনে যিনি মদদ যোগাচ্ছেন তিনি হচ্ছেন এই সরকারের একজন প্রভাবশালী মন্ত্রী এবং তিনি শুধু নন, তার সঙ্গে একজন প্রতিমন্ত্রীও ছিলেন। তারা তাদের স্বার্থকে হাসিল করার জন্য এই ধরনের অরাজক একটা অবস্থা তৈরি করেছে, সেটাতে জনগণ দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছে।”

জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে বিএনপির উদ্যোগে ২০০৯ সালে ২৫ ও ২৬ ফেব্রুয়ারি পিলখানায় নিহত সেনা কর্মকর্তাদের স্মরণে এই আলোচনা সভা হয়।

সড়ক দুর্ঘটনায় হতাহতের ঘটনায় দুই চালকের সাজার রায়ের প্রতিবাদে মঙ্গলবার সকাল থেকে সারা দেশে পরিবহন শ্রমিকদের অনির্দিষ্টকালের এই ধর্মঘট শুরু হয়। মঙ্গলবারের মত বুধবারও কোনো জেলা থেকে দূরপাল্লার কোনো যানবাহন ছাড়েনি চালকরা। রাজধানী ঢাকায় নগর পরিবহনের বাসও বন্ধ রাখা হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ মানুষ।

পরিবহন ধর্মঘটের কারণে জনদুর্ভোগের কথা ‍উল্লেখ করে ফখরুল বলেন, “আজকে সকালে আমি উত্তরা থেকে অনুষ্ঠানস্থলে আসছিলাম, কোনো বাস চলছে না, পাবলিক যানবাহন নেই।

“অসম্ভব কষ্ট মানুষের, হেঁটে হেঁটে মহিলারা পর্যন্ত রাস্তা-ঘাটে চলছেন। গতকাল দেখেছি গাবতলীতে শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের গোলাগুলি হচ্ছে, সংর্ঘষ হচ্ছে। আজকে কিছুক্ষণ আগে খবর পেয়েছি, গাবতলীতে একজন শ্রমিক পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছেন।”

তিনি বলেন, “আজকে গোটা দেশে সরকার বলতে কিছু আছে বলে মনে হয় না। আছে একটা দখলদার বাহিনীর মতো, জনগণের প্রতিনিধিত্বশালী কোনো সরকার নেই। সমগ্র দেশের মানুষ আজকে চরম অস্থিতিশীল ও অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছে। এই সরকারের সম্পূর্ণ তাদের শুধু ব্যক্তিগত স্বার্থে, দলীয় স্বার্থে তারা আজ গোটা দেশকে ধ্বংস করে ফেলেছে। সরকার সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছে এই সমস্যার সমাধান করতে।”

পিলখানায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, “পিলখানার ঘটনার দিনটি জাতির জন্য কলঙ্কময় দিন। এদিনে অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনকভাবে একটি সুপরিকল্পিত চক্রান্তের মাধ্যমে আমাদের জাতীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে ধবংস করে দেওয়া এবং আমাদের সেনাবাহিনীর মনোবলকে ভেঙে দেয়ার জন্য এসব অকুতভয় সেনা কর্মকর্তাদের হত্যা করা হয়েছে। এটা বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। একটি মহল যারা কখনও বাংলাদেশকে স্বাধীন, সার্বভৌম ও সমৃদ্ধশালী দেখতে চায় না, তারাই সুচতুরভাবে এই ঘটনা ঘটিয়েছে।

“এই সরকার পিলখানার সেই বিদ্রোহ দমন করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। আমরা বলতে চাই, এই পিলখানায় যে ঘটনা ঘটেছে, ভবিষ্যতে তার সঠিক তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধী যারা তাদেরকে চিহ্নিত করা হবে এবং তাদেরকে বিচারের আওতায় আনা হবে ইনশাল্লাহ, এদেশের মানুষ এটা করবে।”

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক সেনা প্রধান মাহবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে দলের দলের নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, রুহুল কবির রিজভী, রুহুল আলম চৌধুরী, শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি বক্তব্য রাখেন।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog