1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
  2. mohajog@yahoo.com : Daily Mohajog : Daily Mohajog
  3. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ১০:৩৩ অপরাহ্ন

নবম ওয়েজ বোর্ডে ‘ইলেকট্রনিক মিডিয়াও থাকছে’

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৯ মার্চ, ২০১৭
  • ৬০ বার

প্রতিবেদক :  সংবাদকর্মীদের বেতন-ভাতা পুনর্নির্ধারণের জন‌্য নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনের কাজ চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। ইলেকট্রনিক সংবাদমাধ্যমের সংবাদকর্মীদেরও এই কাঠামোতে আনার নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।  বৃহস্পতিবার সংবাদপত্র সংশ্লিষ্ট দুটি সংগঠনের নেতাকর্মীরা সাক্ষাৎ করতে গেলে এ কথা বলেন মন্ত্রী।

তিনি বলেন, “নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনের প্রস্তাবে আমরা নীতিগত সম্মতি দিয়েছি। সরকার উদ্যোগ নিলেও এটা মূলত সাংবাদিক, কর্মচারী এবং মালিক- এই ত্রিপক্ষীয় একটা ব্যবস্থা। সরকার শুধু মধ্যস্থতা করে আসছে।”

ওয়েজ বোর্ড গঠন প্রক্রিয়া তুলে ধরে ইনু বলেন, একজন বিচারপতি এই বোর্ডের নেতৃত্ব দেন। তাকে সরকারের তরফ থেকে নিয়োগ দেওয়া হয়।

“বাকিরা কিন্তু আমাদের হাতে নেই। সাংবাদিক, কর্মচারী, শ্রমিক, মালিকপক্ষ প্রতিনিধি দেবেন, আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে সেটাকে একটা আইনগত রূপ দেব যে, এরা ওয়েজ বোর্ডের সদস্য। এই সদস্যরাই ধারাবাহিক আলোচনার মধ্য দিয়ে ওয়েজ বোর্ডের কাজ এগিয়ে নিয়ে যাবে।”

মন্ত্রী জানান, যেসব প্রস্তাব পাওয়া গেছে, তার ভিত্তিতে ওয়েজ বোর্ড গঠনের প্রক্রিয়ায় তথ্য মন্ত্রণালয় হাত দিয়েছে।

“অনেক দূর আমরা এগিয়েও গেছি। আমরা আশা করছি, অতি দ্রুত আনুষ্ঠানিকভাবে কাজ শুরু করা যাবে।”

তিনি জানান, ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন, বাংলাদেশ ফেডারেল ইউনিয়ন অব নিউজ পেপার প্রেস ওয়ার্কার্স ইতোমধ‌্যে প্রতিনিধির নাম দিয়েছে। তবে বাংলাদেশ সংবাদপত্র কর্মচারী ফেডারেশন ও নিউজপেপার ওনার্স অ‌্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (নোয়াব) প্রতিনিধির নাম এখনও জমা পড়েনি।

“মন্ত্রণালয়ের তরফ থেকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে বিচারপতির প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। তারা এখনো চূড়ান্ত করে পাঠায়নি। এখানে চূড়ান্ত হলে প্রধানমন্ত্রী চূড়ান্ত করলে আমরা আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করব।”
মন্ত্রী বলেন, আইনি জটিলতার কারণে ইলেকট্রনিক মিডিয়া, টেলিভিশন ও কমিউনিটি রেডিও এবং এফএম রেডিওর কর্মীদের ওয়েজ বোর্ডে অধীনে রাখা যায়নি। কীভাবে তা করা যায়, তা ঠিক করতে অংশীজনদের নিয়ে মন্ত্রণালয় একটি কমিটি করে দিয়েছে।

“এটা করতে আইনে হাত দিতে হবে। সেটা বড় কথা নয়। মানুষের জন্য সব করা যায়। আমরা নীতিগতভাবে তাদেরকেও ওয়েজ বোর্ডে আনতে নীতিগতভাবে সম্মত।”

সর্বশেষ ২০১২ সালে সংবাদপত্রের কর্মীদের জন্য মূল বেতনের ৫০ শতাংশ হারে অন্তর্বর্তীকালীন মহার্ঘ্য ভাতা ঘোষণা করে সংবাদপত্রের অষ্টম মজুরি বোর্ড। পরের বছর অষ্টম ওয়েজ বোর্ড রোয়েদাদ ঘোষণা করা হয়।

এই বেতন কাঠামো সংবাদপত্র ও বার্তা সংস্থার কর্মীদের জন‌্য প্রযোজ‌্য। টেলিভিশনসহ অন‌্যান‌্য সংবাদমাধ‌্যমের জন‌্য কোনো সার্বজনীন কোনো কাঠামো নেই।

গত বছর সর্বোচ্চ ৭৮ হাজার এবং সর্বনিম্ন ৮ হাজার ২৫০ টাকা মূল ধরে সরকারি চাকুরেদের জন্য অষ্টম বেতন কাঠামো অনুমোদন করে সরকার। এর সঙ্গে সঙ্গতি রেখে সশস্ত্র বাহিনীর জন্যও নতুন বেতন কাঠামো অনুমোদন দেওয়া হয়।

এরপর থেকেই সাংবাদিকদের বিভিন্ন সংগঠন সরকারি বেতন কাঠামোর সঙ্গে সঙ্গতি রেখে নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনের দাবি জানিয়ে আসছে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog