1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:২৭ পূর্বাহ্ন

এজেন্সি-দালালের ফাঁদে পড়ে হজে যেতে পারছেন না ৭১০০০ মানুষ

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২১ মার্চ, ২০১৭
  • ১১৬ বার

প্রতিবেদক: পবিত্র হজের মতো ফরজ এবাদত নিয়েও প্রতারণা! হজ এজেন্সি এবং দালালচক্রের ফাঁদে পড়ে এবার ৭১ হাজার ধর্মপ্রাণ মানুষ হজে যেতে পারছেন না। প্রাক-নিবন্ধন এবং হজের টাকা তুলে দিয়ে এখন হজ এজেন্সি ও দালালের পেছনে ঘুরতে ঘুরতে হয়রান হচ্ছেন হজ করতে ইচ্ছুক এসব মানুষ। এক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি ভোগান্তি শিকার গ্রামাঞ্চলের সহজ সরল হাজার হাজার মানুষ।

এদিকে প্রাক নিবন্ধনে অনিয়মের তদন্তে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় দুইটি এবং ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি আরো একটি কমিটি গঠন করে। চলমান সেই তদন্তের মধ্যেই ২০ মার্চ এ বছরের প্রাক-নিবন্ধনের টাকা জমা দেয়ার সময় শেষ হয়।

প্রতারকরা বলছেন, সিরিয়াল নম্বর না পেলেও সরকারি কোটায় ৫-৬ হাজার লোক নেয়া হবে। সিরিয়াল পেছনে থাকলে এগিয়ে আনতে বাড়তি টাকা চাওয়া হচ্ছে। অথচ বাংলাদেশের জন্য নির্ধারিত হজ কোটার অতিরিক্ত প্রায় ৭১ হাজারের বেশি প্রাক-নিবন্ধন করা হয়েছে।

২০১৭ সালে সৌদি সরকারের সঙ্গে হজ চুক্তি অনুযায়ী এক লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজে যেতে পারবেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১০ হাজার এবং বাকিরা বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যাবেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০ মার্চ শেষ হয়েছে এ বছরের প্রাক-নিবন্ধনের টাকা জমাদান। এ সময়ের মধ্যে সরকারি পর্যায়ে তিন হাজার ৩৪৯ জন এবং বেসরকারি পর্যায়ে এক লাখ ৮৫ হাজার ৫০৩ জন প্রাক-নিবন্ধন সম্পন্ন করেছেন। এদের সাথে যোগ হবে গত বছর কোটা জটিলতার কারণে হজে যেতে না পারা ৩৭ হাজার ৪৫০ জন প্রাক-নিবন্ধনকারী। ফলে সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে প্রাক-নিবন্ধনকারীর সংখ্যা দুই লাখ ৮৮ হাজার ৪০৯ জন হয়েছে।

হজে যেতে পারবে না জানা সত্ত্বেও প্রতারণা করে টাকা নিলে লাইসেন্স বাতিলে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের হুঁশিয়ারি মানছে না অনেক হজ এজেন্সি।

মন্ত্রণালয়ের সূত্র জানায়, এবার এক লাখ ৪০ হাজার ৯৯৫ সিরিয়াল থেকে প্রাক-নিবন্ধন শুরু হয়। সে হিসাবে সর্বশেষ সিরিয়াল হতে পারে ২১৭২৮৮। এই সিরিয়ালের বাইরে কারো হজে যাওয়ার সুযোগ নেই।

হজযাত্রী ও হাজী কল্যাণ পরিষদের সভাপতি আবদুল্লাহ আল নাসের বলেন, নির্দিষ্ট কোটার বাইরে যারা প্রাক-নিবন্ধন করেছেন তারা এবার হজে যেতে পারবেন না জেনেও নিবন্ধনের নাম করে দালালরা অনেকের কাছ থেকে দুই-আড়াই লাখ টাকা প্রতারণা করে নিয়েছে। এসব দায়ীদের ও প্রতারকদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে সরকারের কাছে দাবি জানান তিনি।

এ বিষয়ে হজ এজেন্সিগুলোর সংগঠন হজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-হাব সভাপতি মোহাম্মদ ইবরাহিম বাহার বলেন, নিবন্ধন করেও যারা হজে যেতে পারছেন না তাদের কাছ থেকে নিবন্ধন ফির বাইরে কোনো টাকা নেওয়া যাবে না। কারো বিরুদ্ধে প্রতারণা করে টাকা নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব আবদুল জলিল বলেন, কোনো হজ এজেন্সির বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ এলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যারা হজে যাবেন তাদের কাছে অনুরোধ করব-নিবন্ধন নম্বর দেখে টাকা দিবেন। প্রাক-নিবন্ধিতদের মধ্য থেকে সবাই এবার হজে যেতে পারবেন না। তবে যারা এবার যেতে পারবেন না তাদের আগামী বছর অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।

চলতি বছরের ৩০ জানুয়ারি নতুন বছরের হজ প্যাকেজের খসড়া অনুমোদন দেয় সরকার। প্যাকেজ অনুযায়ী, সরকারিভাবে দুই ধরনের খরচে হজে যাওয়া যাবে। এর মধ্যে এক নম্বর প্যাকেজের আওতায় প্রতিজনের হজের খরচ লাগবে ৩ লাখ ৮১ হাজার ৫০৮ টাকা। আর দুই নম্বর প্যাকেজের আওতায় খরচ পড়বে ৩ লাখ ১৯ হাজার ৩৫৫ টাকা।

আর বেসরকারিভাবে সর্বনিম্ন খরচ নির্ধারণ করা হয়েছে ১ লাখ ৫৬ হাজার ৫৩৮ টাকা। তবে এই খরচটি শুধু বিমানভাড়াসহ অপরিহার্য বিষয়ের খরচ। থাকা-খাওয়া এ খরচের মধ্যে পড়বে না।

তখন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সংবাদ সম্মেলনে জানান, এবারও সরকারিভাবে ১০ হাজার ব্যক্তি হজ করতে যেতে পারবেন। আর বেসরকারিভাবে যেতে পারবেন ১ লাখ ১৭ হাজার ১৯৮ জন।

গতবার বেসরকারিভাবে ৯১ হাজারের কিছু বেশি মানুষ হজে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog