1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:২০ পূর্বাহ্ন

বিধর্মীকেও অন্যায়ভাবে হত্যা বড় অপরাধ : মসজিদে নববির ভাইস প্রেসিডেন্ট

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৬ এপ্রিল, ২০১৭
  • ২৫৭ বার

প্রতিবেদক : ইসলামে নিরপরাধ ব্যক্তিকে হত্যা করা বড় অপরাধ বলে জানিয়েছেন সৌদি আরবের মসজিদুল হারাম ও মসজিদুন নববির ভাইস প্রেসিডেন্ট শায়খ ড. মুহাম্মদ বিন নাসের আল খুযাইম। তিনি বলেন, ‘হে মুসলমান ভাইয়েরা, নিরপরাধ ব্যক্তিকে হত্যা ইসলামে বড় অপরাধ। আমরা নিরাপরাধ ব্যক্তিকে হত্যা করতে পারি না। কোনও মুসলমানকে কোন মুসলমান হত্যা করতে পারে না। বিধর্মীকেও অন্যায়ভাবে হত্যা করতে পারে না।’

বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত ওলামা মাশায়েখ মহাসম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। বিকেল তিনটার দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মঞ্চে আসেন। এরপরই বক্তব্য দেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক শামীম আফজাল হোসেন।

মুহাম্মদ বিন নাসির আল খুজাইম বলেন, ‘অন্যায়ভাবে হত্যা করলে হাশরের ময়দানে জাহান্নামের আগুন রয়েছে। এ আগুন থেকে কেউ তাকে বাঁচাতে পারবে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘ওই ব্যক্তিদের হত্যা করা যাবে না, যারা মুসলমানদের দেশে বাস করে এবং বিধর্মী। তাদের জান-মালের দায়িত্বও আল্লাহ মুসলমানদের দিয়েছে। আজকাল দেখছি মুসলমানরা মুসলমানদের হত্যা করছে, রক্ত প্রবাহিত হচ্ছে, এদের সঙ্গে ইসলামের কোনও সম্পর্ক নেই। মুসলমান মুসলমানকে হত্যা করতে পারে না।’

মসজিদে নববির ইমাম বলেন, ‘যারা মানুষ হত্যা করে তাদের জন্য জাহান্নাম রয়েছে যারা দেশের শান্তি বিনষ্ট করতে চায়, দেশে অশান্তি নিয়ে আসতে চায়, যারা জঙ্গিবাদের সঙ্গে সম্পর্কিত তারা জাহান্নামে যাবে। মনে রাখবেন, ইসলামে করেকটি হারাম কাজের মধ্যে যারা মানুষক ভয় ভীতি দেখায়, যারা সন্ত্রাস জঙ্গি কর্মকাণ্ড করে এদের সঙ্গে ইসলামের কোনও সম্পর্ক নেই। ’

তিনি আরও বলেন, ‘বর্তমান বিশ্বে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদকে ইসলামের সঙ্গে সম্পর্কিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। ইসলামের সঙ্গে সন্ত্রাস বা জঙ্গিবাদের কোনও সম্পর্ক নেই। সুতরাং আমাদেরকে ইসলামকে মজবুত করার জন্য ইসলামের তালিমকে মজবুত করতে হবে।

যারা দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে সম্পর্তিক তাদেরকে সহায়তা করতে হবে।

কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান আছে যেখানে ছাত্রদের গুমরাহ করার জন্য দেশে বিশৃঙ্খলা তৈরিতে ব্যবহার করা হয় তাদের বলুন, তাদের সঙ্গে ইসলামের কোনও সম্পর্ক নেই।’

তিনি বলেন, ‘সৌদি আরবের বাদশাহ প্রতিজ্ঞা করেছে ইসলামের নামে যে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ ছড়ানো হচ্ছে তাদের মুখোশ খুলে দেবেন। ইসলামের সঙ্গে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের কোনও সম্পর্ক নেই। পুরো প্রচেষ্টা সৌদির পক্ষ থেকে চালানো হচ্ছে। আমরা দিনরাত পরিশ্রম করছি সৌদি বাদশার নেতৃত্বে বিশ্বে আমরাই সর্বপ্রথম দেশ যারা সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিয়েছি।’

মসজিদে নববির ইমাম বলেন, ‘যারা ইসলামের নামে সন্ত্রাস জঙ্গিবাদের ট্রেনিং দিচ্ছে তাদের সঙ্গে ইসলামের কোনও সম্পর্ক নেই। ইসলামের সঙ্গে দূরের কোনও সম্পর্কও নেই।’

এদিন সকাল থেকেই দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে সম্মেলনস্থলে আসতে শুরু করেন ওলামা মাশায়েকগণ। সম্মেলনস্থলের ভেতরে ও বাইরে পুলিশ ও গোয়েন্দারা নিরাপত্তায় নিয়োজিত রয়েছেন। প্রতিটি প্রবেশ কেন্দ্রের ব্যাপক তল্লাশির মাধ্যমে আগতদের সম্মেলনস্থলে প্রবেশ করানো হয়।

ওলামা মহাসম্মেলন ঘিরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার প্রতিটি প্রবেশপথে বসানো হয়েছে আর্চওয়ে গেইট। এছাড়া বাইরেও তল্লাশি চালানো হচ্ছে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের আশেপাশে প্রায় এক কিলোমিটার এলাকা জুড়ে নিরাপত্তা বলয় তৈরি করা হয়েছে। পুরো এলাকা সিসিটিভি ক্যামারার মাধ্যমে তিনটি অস্থায়ী ক্যাম্প থেকে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। এছাড়া যেকোনও পরিস্থিতি মোকাবিলায় সোয়াট ও বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটের সদস্যরাও উপস্থিত রয়েছেন।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog