1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:১৬ পূর্বাহ্ন

ইন্টারনেটে ভ্যাট অব্যাহতি চায় অ্যামটব

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৮ এপ্রিল, ২০১৭
  • ১৯৬ বার

প্রতিবেদক: ইন্টারনেট ব্যবহারের ওপর ভ্যাট অব্যাহতির প্রস্তাব করেছে মোবাইল অপারেটরদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব মোবাইল টেলিকম অপারেটরস অব বাংলাদেশ (অ্যামটব)। একইসঙ্গে মোবাইল অপারেটর কোম্পানিগুলোর কর্পোরেট কর কমিয়ে সাধারণ কোম্পানির মতো করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

মঙ্গলবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ড সম্মেলন কক্ষে আসন্ন ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রাক-বাজেট আলোচনায় অ্যামটব এর পক্ষ থেকে এ প্রস্তাব করা হয়।

সংগঠনের মহাসচিব টিআইএম নুরুল কবির বলেন, দেশের ৯৫ শতাংশ মানুষ মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যবহার করে। সকলের জন্য ইন্টারনেট ব্যবহার সহজ, ব্যবহারকারীর সংখ্যা বৃদ্ধি ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্যে ইন্টারনেট সেবার ওপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট অব্যাহতি দেয়া দরকার। এর মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া সহজ হবে।

গ্রাহক আকৃষ্ট ও মোবাইল অপারেটদের আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী করারও প্রস্তাব রাখেন তিনি। বলেন, এজন্য সরকারের উচিত হবে সিম কার্ডের ওপর আরোপিত সম্পূরক শুল্ক ও  ভ্যাট সম্পূর্ণ প্রত্যাহার করা।

“মোবাইল অপারেটররা এ খাতের অগ্রপথিক। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ এ খাতের অংশীজনদের উপর উচ্চ করের বোঝা চাপিয়ে দেয়া হয়েছে। এ খাতে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত মোবাইল অপারেটর কোম্পানিসমূহকে ৪০ শতাংশ ও তালিকার বাইরে থাকা কোম্পানিসমূহকে ৪৫ শতাংশ হারে কর্পোরেট কর পরিশোধ করতে হয়। এতো উচ্চ করারোপ অন্য কোনো খাতে করা হয়নি।”নুরুল কবির বলেন, দেশের ৪৬ শতাংশ মানুষ এখনো মোবাইল নেটওয়ার্কের বাইরে আছে। বিশাল এ জনগোষ্ঠীকে বাদ দিয়ে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া সম্ভব নয়। মোবাইল অপারেটরগুলো সরকারের ডিজিটাল ভিশন বাস্তবায়নের জন্য বদ্ধ পরিকর। তারা গ্রাহকদের বিভিন্নভাবে প্রণোদনা দেয়ার চেষ্টা করছে।

তিনি বলেন, উচ্চ করারোপ সরকারের লক্ষ্যকে বাধাগ্রস্ত করছে। বিনিয়োগে নিরুৎসাহিত করছে। সম্ভাবনাময় এ খাতকে আলাদাভাবে বিবেচনা না করে অন্যান্য সাধারণ কোম্পানির মতো কর্পোরেট কর ৩৫ শতাংশ করা উচিত।

নুরুল কবির আরও বলেন, সিম ও রিম সরবরাহের ক্ষেত্রে ৩৬.৬৫ টাকা ভ্যাট ও ৬৩.৩৫ টাকা সম্পূরক শুল্কসহ ১০০ টাকা সিম ট্যাক্স ও রিপ্লেসমেন্টে সিমে ১০০ টাকা ট্যাক্স পরিশোধ করতে হয়।

আসন্ন বাজেটে প্রস্তাব রেখে তিনি বলেন, গ্রাহক সেবা বৃদ্ধি, গ্রামীণ গ্রাহকদের আকৃষ্ট করা, কোম্পানিসমূহকে আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী করা ও সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য এই ট্যাক্স পুরোপুরি প্রত্যাহার হওয়া উচিত।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog