1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha : Sardar Dhaka
  2. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
  3. rafiqul@mohajog.com : Rafiqul Islam : Rafiqul Islam
  4. sardar@mohajog.com : Shahjahan Sardar : Shahjahan Sardar
বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ০৬:১৬ অপরাহ্ন

বাঁধের চেয়ে পানির উচ্চতা বেশি হওয়ায় হাওরে বন্যা: পানিসম্পদ মন্ত্রী

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৩ এপ্রিল, ২০১৭
  • ৮৭ বার

প্রতিবেদক: পানিসম্পদ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেছেন, বাঁধের চেয়ে পানির উচ্চতা বেশি হওয়ায় হাওর এলাকা বন্যায় প্লাবিত হয়েছে।

রবিবার সকালে সচিবালয়ে হাওরের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এ কথা জানান।

পানিসম্পদ মন্ত্রী বলেন, হাওরের বাঁধের উচ্চতা সাড়ে ৬ মিটার। আর এবার পানির উচ্চতা ছিল ৮ দশমিক ১ মিটার। গত ২০ বছরে এমন হয়নি।

তিনি বলেন, গত ২৯ মার্চ থেকে ১ এপ্রিল পর্যন্ত ৪ দিনে পানির উচ্চতা সিলেটে প্রায় সাড়ে ৮ মিটার ও সুনামগঞ্জে ৫ মিটার বেড়েছে। আর কখনও এমনটা বাড়েনি। পানির উচ্চতার জন্য বন্যা হয়েছে।

তবে হাওরের বাঁধ নির্মাণে কোনো দুর্নীতি হয়েছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

এ সময় আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, ‘জলবায়ুর প্রভাবে বাংলাদেশের হাওরাঞ্চলে এবার পানির ওভার ফ্লো হয়েছে। এক্ষেত্রে পানি উন্নয়ন বোর্ডোর কিছুই করার ছিল না।’

তিনি বলেন, ‘বাঁধের উচ্চতার চেয়ে এবার পানির ঢলের উচ্চতা বেশি। এজন্য বন্যার পানি ঠেকানো সম্ভব হয়নি। এ বছর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের প্রায় দেড় ফুট উঁচু দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। বর্তমানে বাঁধের উচ্চতা ৫/৬ ফুট।’

পানিসম্পদমন্ত্রী বলেন, ‘এ বছর নতুন বাঁধ নির্মাণ ও পুরাতন বাঁধ মেরামতে ৬০ কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। এর মধ্যে ২২ কোটি টাকা ছাড় করা হয়েছে। আর এ ২২ কোটি টাকার মধ্যে ৯ কোটি টাকা কাজের বিনিময়ে টাকা (কাবিটা) প্রকল্পে ব্যয় করা হয়েছে। এখানেও কোনো অনিয়ম হয়েছে কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘সংবাদপত্রে দেখেছি মেঘালয় থেকে আসা পানিতে ইউরেনিয়াম আছে। সেই পানি হাওরের পানিতে মিশে গেছে। পরমাণু শক্তি কমিশন পানি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে। তাদের প্রতিবেদনের ওপর পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।’

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 Mohajog