1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ১০:১৯ পূর্বাহ্ন

২০ ডলার যায় কোথায় : রেহমান সোবহান

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৩ এপ্রিল, ২০১৭
  • ২২৬ বার

প্রতিবেদক : বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) চেয়ারম্যান রেহমান সোবহান বলেছেন, বিশ্ব পণ্য সরবরাহ ব্যবস্থায় (গ্লোবাল ভ্যালু চেইন) একধরনের অন্যায্যতা আছে। বাংলাদেশ থেকে একটি তৈরি পোশাক পাঁচ ডলারে কেনা হয়। তারপর তা বিশ্ববাজারে ২৫ ডলার কিংবা এর বেশি দামে বিক্রি হয়। তাহলে পণ্য সরবরাহব্যবস্থায় ওই ২০ ডলার কোথায় যায়? এই অন্যায্য ব্যবস্থার কারণে সবাই এর সুফল পাচ্ছে না। এটি একটি কাঠামোগত সমস্যা।

রেহমান সোবহান আরও বলেন, ‘রানা প্লাজা ইস্যুতে জাতীয় সংসদে কোনো আলোচনা হয়নি। এমনকি সংসদীয় কমিটিতেও কোনো আলোচনায় হয়নি। রাজনৈতিকভাবে যে নজরদারির প্রয়োজন, এ ক্ষেত্রে তা দেখা যায়নি। আমরা যতই আলোচনা করি না কেন, রাজনৈতিক অঙ্গীকার না থাকলে কোনো সমস্যার সমাধান হবে না। ’

রোববার বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাত নিয়ে সামাজিক সংলাপবিষয়ক এক সংলাপ অনুষ্ঠানে রেহমান সোবহান এসব কথা বলেন। সিপিডি ও আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) যৌথ আয়োজনে রাজধানী গুলশানের গার্ডেনিয়া গ্র্যান্ড হলে এই সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়। রেহমান সোবহানের সভাপতিত্বে সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন সিপিডির সম্মানীয় ফেলো দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিপিডির গবেষণা পরিচালক খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম।

সংলাপে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ডেলিগেশনের ডেপুটি হেড ইয়োগান হেইম্যান বলেন, আগামী ১৮ মে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাত এবং এর কর্মপরিবেশ নিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নে আলোচনা হবে। সেই বৈঠকের ফল যদি নেতিবাচক হয়, তবে ইউরোপের বাজারে যে অগ্রাধিকার সুবিধা বাংলাদেশ পায়, তাতে সাময়িকভাবে নিষেধাজ্ঞা জারি হবে। তবে এ বিষয়ে শ্রম মন্ত্রণালয়ের সচিব মিকাইল শিপার বলেন, ‘শ্রমসচিব হিসেবে এ বিষয়ে আমি বেশ আত্মবিশ্বাসী। আশা করি, উন্নয়ন সহযোগীদের বোঝাতে সক্ষম হব।’

নিট পোশাক মালিকদের সংগঠন বিকেএমইএর সাবেক সভাপতি ফজলুল হক বলেন, ‘পাঁচ ডলারে পোশাক বিক্রি করতে ক্রেতাদের বিস্তারিত জানাতে হয়। কিন্তু বিদেশি ক্রেতারা যখন ২৫ ডলারে পোশাক বিক্রি করেন, তাতে কত দিয়ে কেনা তা লেখা থাকে না।’

এ সময় শ্রমিক ইউনিয়ন গঠন করার দাবি জানান শ্রমিকনেতা বাবুল আক্তার। তিনি বলেন, সামাজিক সংলাপের কথা বলে ডেকে নিয়ে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শ্রমিকদের সংগঠন ইন্ডাস্ট্রি অল কাউন্সিলের নেতা কামরুল আলম বলেন, ‘শ্রমিকদের ইউনিয়ন করার সুযোগ দিতে হবে। কিন্তু পার্টিসিপেটরি কমিটি ও ট্রেড ইউনিয়ন এক নয়। পার্টিসিপেটরি কমিটিতে সদস্য মনোনীত হতে হবে ইউনিয়নের প্রতিনিধির মাধ্যমে।’

শ্রমিকনেতারা আরও জানান, ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিকেরা এখনো পর্যাপ্ত ক্ষতিপূরণ পাননি। তাঁদের পুনর্বাসন-প্রক্রিয়া আরও এগিয়ে নিতে হবে।

অনুষ্ঠানে শ্রমিক ইউনিয়ন থাকবে কি না, এটি এখনো আইনগত বিষয় জানিয়ে তৈরি পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ সহসভাপতি মাহমুদ হাসান খান বলেন, বিজিএমইএ শ্রমিক ইউনিয়ন চায় না—এটা বলা হচ্ছে। কিন্তু এটা ঠিক নয়। ৫৯১টি কারখানায় শ্রমিক ইউনিয়ন আছে। তিনি আরও বলেন, পোশাক কিনতে ক্রেতারা বেশি পয়সা দেবেন না। বেশি পয়সার জন্য চাপ দিলে ক্রেতারা ইথিওপিয়া যাওয়ার কথা বলবেন। তৈরি পোশাক রপ্তানিতে ভারত ধীরে ধীরে বাংলাদেশের বড় প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে যাচ্ছে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog