1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha : Sardar Dhaka
  2. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
  3. rafiqul@mohajog.com : Rafiqul Islam : Rafiqul Islam
  4. sardar@mohajog.com : Shahjahan Sardar : Shahjahan Sardar
বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ০৭:১০ অপরাহ্ন

মাঝারি তাপপ্রবাহ: জনজীবনে ছন্দপতন

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২২ মে, ২০১৭
  • ৯৫ বার

প্রতিবেদক : চলমান মাঝারি মাপের তাপপ্রবাহের কারনে সারাদেশের স্বাভাবিক জনজীবনে ছন্দপতন ঘটেছে। বিশেষ করে রাজধানী ঢাকার বাসিন্দারা তীব্র গরমের কারনে প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছেন না। ঢাকার তাপমাত্রা আজ সোমবার সকালে ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছাড়িয়ে গেছে বলে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে। এই তাপ প্রবাহ আরো বাড়তে পারে। সামনের দুই-তিনদিন বৃষ্টির কোনো সম্ভাবণা নেই।

সোমবার ঢাকার ব্যস্ততম সড়ক মতিঝিল, গুলশান, ধানমন্ডি, যাত্রাবাড়ি, উত্তরা, সরদঘাট, তেজগাও ঘুরে দেখা গেছে, অন্য দিনের মতো সড়কগুলোতে জনজীবনের ব্যস্ততার চিত্র নেই। সড়কগুলো স্বাভাবিকের তুলনায় অতিমাত্রায় ফাঁকা। নিত্যদিনের যানজটও চোঁখে পড়েনি।

আবহাওয়াবিদ রাশেদুজ্জামান বলেন, এই সময় দক্ষিণ দিক থেকে আসা বাতাসে প্রচুর জলীয়বাষ্প থাকে। শরীরে তাই প্রচুর ঘাম হয়। বৃষ্টির বিরতি পড়লে তাপমাত্রা বেড়ে যায়। এ ছাড়া এখন দিনের ব্যপ্তিও র্দীঘ এবং সূর্যের প্রখরতা বেশি থাকে। এসব কারণে গরমে অস্বস্তিবোধ বেড়ে যায়।

মতিঝিল এলাকার রিক্সা-চালক মো. মুসা (৫৫) এই প্রতিবেদককে বলেন, অন্যদিন দুপুর ১২টার মধ্যে ৫০০/৭০০ টাকা আয় করতে পারি। আজকে এখন পর্যন্ত ২০০ টাকাও আয় হয়নি। গরমের কারনে কেউ বের হচ্ছে না। তাই বসে আছি।

তেজগাও এলাকায় দায়িত্বরত ট্রাফিকের এক কর্মকর্তা জানান, এই সড়কে প্রতিদিনই কম-বেশি যানজট থাকে। ফলে সড়কের শৃঙ্খলা ঠিক রাখতে তাদের হিমশিম খেতে হয়। অন্যদিনের তুলনায় গতকাল থেকে সড়কগুলো ফাঁকা। গরমের কারনে মানুষ প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হচ্ছে না।

ব্যবসায়ী মো. আবুল হোসেন প্রতিদিন উত্তরা থেকে ফার্মগেটে এসে কাজ করেন। সোমবার তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, প্রতিদিন উত্তরা থেকে ফার্মগেটে আসার জন্য রীতিমত যুদ্ধ করতে হয়। বাসের সিটতো দুরের কথা দাড়িয়ে আসারও জায়গা পাওয়া যায় না। কিন্তু আজ দুইদিন গরমের কারনে বাসগুলো ফাঁকা। আরাম করে সিট নিয়ে আসতে পারছি।

আজ সোমবার সকালে আবহাওয়া কার্যালয়ের সর্বশেষ বুলেটিনে বলা হয়েছে, ঢাকায় এখন তাপমাত্রা বিরাজ করছে ৩৬ ডিগ্রির বেশি। আর সবচেয়ে বেশি তাপমাত্রা রয়েছে খুলনা ও যশোরে। সেখানে বর্তমানে ৩৮-৩৯ ডিগ্রির মধ্যে ঘোরাফেরা করছে তাপ। ঢাকা ও আশপাশরে তাপমাত্রা তুলনামূলকভাবে একটু বেশি হলেও কুড়িগ্রাম ও সিলেটে তাপ একটু কম।

অন্যদিকে, গতকাল রবিবার যশোরে দেশের র্সবোচ্চ ৩৮ ড্রিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়, যা চলতি সপ্তাহরে সর্বোচ্চা। আর ঢাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৩৬ দশমকি ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আবহাওয়ার র্দীঘময়োদী র্পূবাভাস অনুযায়ী, মে মাসে দেশের উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে এক থেকে দুইটি তীব্র এবং অন্য অঞ্চলে দুই থেকে তিনটি মৃদু বা মাঝারি তাপপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

আবহাওয়াবিদ আবদুর রশিদ জানান, র্থামোমিটারের পারদ চড়তে চড়তে যদি ৩৬ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে উঠলে তাকে মৃদু তাপপ্রবাহ বলা হয়। তাপমাত্রা বেড়ে ৩৮ থেকে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস হলে তাকে বলা হয় মাঝারি তাপপ্রবাহ। আর তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি ছাড়িয়ে গেলে তাকে তীব্র তাপপ্রবাহ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 Mohajog