1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:০০ পূর্বাহ্ন

অপারেশন হিট ব্যাক : ৭ গ্রেনেড, ৩ আত্মঘাতী বন্ধনী উদ্ধার

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৭ মে, ২০১৭
  • ৫৬ বার

প্রতিনিধি : ঢাকার সাভারের মধ্যগ্যান্ডা এলাকায় জঙ্গি আস্তানায় অভিযান আজ শনিবার বেলা পৌনে তিনটার দিকে শেষ হয়েছে। ওই আস্তানা থেকে সাতটি গ্রেনেড, তিনটি সুইসাইড ভেস্ট (আত্মঘাতী বন্ধনী) ও বিস্ফোরক তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার রাত থেকে বাড়িটি ঘিরে রেখেছিল পুলিশ। ওই বাড়িট থেকে এক নারীকে আটক এবং দুই শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছে।
ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আশরাফুল আজিম বলেন, ওই আস্তানা থেকে সাতটি গ্রেনেড, তিনটি সুইসাইড ভেস্ট, গ্রেনেড তৈরির কয়েক হাজার ব্যাটারি, সালফিউরিক অ্যাসিড ও গানপাউডার উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি জানান, ঢাকার পুলিশ সুপার (এসপি) এই অভিযানের ব্যাপারে আনুষ্ঠানিকভাবে ব্রিফিং করে বিস্তারিত জানাবেন।
এর আগে আজ বেলা পৌনে ১১টার দিকে ঢাকা থেকে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দল। এরপর ওই বাড়িতে অভিযানের শুরু করা হয়।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, অভিযানের অংশ হিসেবে ওই বাড়ির বিদ্যুৎ ও গ্যাসের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মাধ্যমে বাড়িটিতে পানি ছোড়া হয়। এ ছাড়া ওই বাড়িটির আশপাশ থেকে সাধারণ মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরে যাওয়ার জন্য মাইকিং করা হয়। অভিযান চলাকালে দুপুর সোয়া ১২টায় ওই বাড়িতে প্রথম ভয়াবহ বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়। এরপর বেলা ১টা ১০ মিনিট, ১টা ২০ মিনিট, ১টা ২৫ মিনিট ও বেলা দেড়টায় বিকট বিস্ফোরণ ঘটে।
গতকাল শুক্রবার রাতে ওই বাড়ি ঘিরে ফেলে পুলিশ। ঢাকা থেকে আজ শনিবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দল। এর কিছুক্ষণ পরই ‘অপারেশন হিট ব্যাক’ নামে অভিযান শুরু করা হয়েছে বলে পুলিশের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।
এদিকে দুটি জঙ্গি আস্তানার আধা কিলোমিটার এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি রয়েছে। এর আগে শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা থেকে সাভার পৌর এলাকার মধ্যগেন্ডা মহল্লার সাকিব মিয়ার বাড়িতে এ জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পায় পুলিশ। পাঁচ তলা বিশিষ্ট বাড়িটির নিচ তলার ফ্ল্যাটে জঙ্গিদের আস্তানা। ওই বাড়িট থেকে এক নারীকে আটক এবং দুই শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, ইতিমধ্যে ওই বাড়ির বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মাধ্যমে বাড়িটিতে পানি ছোড়া হয়। এ ছাড়া ওই বাড়িটির আশপাশ থেকে সাধারণ মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরে যাওয়ার জন্য মাইকিং করা হয়।
গতকাল রাত সোয়া নয়টার দিকে ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট ও ঢাকা জেলা পুলিশ যৌথভাবে সাভারের মধ্যগ্যান্ডা এলাকার নির্মাণাধীন ছয়তলা একটি বাড়ি ঘিরে ফেলে।

মধ্যগ্যান্ডা এলাকায় ঘিরে রাখা বাড়িটির দোতলা পর্যন্ত নির্মাণ শেষ হয়েছে। নিচতলার এক ভাড়াটে নারী নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, দোতলার ফ্ল্যাটের একটিতে পাঁচ থেকে ছয়জন তরুণ থাকতেন। আরেক ফ্ল্যাটে থাকতেন এক যুবক ও দুই নারী। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তিনি ওই ফ্ল্যাটে গিয়ে দুই নারীর সঙ্গে কথা বলতে গেলে তাঁরা খুব একটা আগ্রহ দেখাননি। বাসায় জড়ো করে রাখা কার্টন দেখে তিনি এর ভেতরে কী আছে জানতে চান। দুই নারী জানান, তাঁরা কাচের চুড়ির ব্যবসা করেন। নিচতলার ওই ভাড়াটে চুড়ি দেখতে চাইলে তাঁরা খুব বিরক্তি প্রকাশ করে তাঁকে চলে যেতে বলেন।
ওই ভাড়াটে জানান, বাড়ির মালিক সৌদি আরবপ্রবাসী। সিরাজুল নামের এক কেয়ারটেকারের কাছ থেকে ওই লোকজন বাড়ি ভাড়া নিয়েছেন।
কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে ওই বাড়ির জানালা কেটে জঙ্গি মনির ও অন্য এক জঙ্গি পালিয়ে গেছে। সাভার মডেল থানার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মাহবুবুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, পাঁচ তলা বিশিষ্ট বাড়িটির নিচ তলার ফ্ল্যাটে জঙ্গিদের আস্তানা। ওই বাড়িট থেকে এক নারীকে আটক এবং দুই শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছে। আমাদের ধারণা, ওই বাড়িতেই জঙ্গি মনির ও তার এক সহযোগী থাকতো। তারা আমাদের উপস্থিতি টের পেয়ে রুমের জানালা কেটে পালিয়ে গেছে।’
তিনি আরো জানান, গ্রেপ্তারকৃত নারীর তথ্য অনুযায়ী ওই বাড়ির কয়েকশ গজ দূরে থাকা অন্য আরেক একটি বাড়িতে অভিযান শুরু হয়েছে। ৬তলা ওই বাড়ির দ্বিতীয় ও নিচতলায় অভিযান চলছে।
বাড়িটি ঘেরাও করার পর আশপাশের এলাকার বাসিন্দাদের সতর্ক অবস্থানে থাকার নির্দেশনা দিয়েছে পুলিশ। ধীরে ধীরেই বাড়ানো হচ্ছে পুলিশের সদস্য সংখ্যা। বর্তমানে ওই এলাকাতে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। প্রথমে ঘেরাও করা বাড়িটির মালিক স্থানীয় ব্যবসায়ী আনোয়ার মোল্লা।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আশরাফুল আজীম। ঢাকার সাভারের মধ্যগ্যান্ডা এলাকায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে গতকাল শুক্রবার রাত থেকে একটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে পুলিশ। ঢাকা থেকে আজ শনিবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দল। ওই বাড়িতে যেকোনো সময় অভিযান শুরু হতে পারে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
গতকাল রাত সোয়া নয়টার দিকে ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট ও ঢাকা জেলা পুলিশ যৌথভাবে সাভারের মধ্যগ্যান্ডা এলাকার নির্মাণাধীন ছয়তলা একটি বাড়ি ঘিরে ফেলে। এর আগে নামাগ্যান্ডা এলাকার একটি বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ।

এর আগে গতকাল বিকেল চারটার দিকে নামাগ্যান্ডা এলাকায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে সিটিটিসি ও ঢাকা জেলা পুলিশ যৌথভাবে একটি পাঁচতলা বাড়ি ঘিরে ফেলে। সাভার মডেল থানার সহকারী পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান বলেন, ওই বাড়ির দুটি ফ্ল্যাটের একটিতে স্ত্রী ও তিন সন্তানকে নিয়ে থাকতেন মণির হোসেন নামের এক ব্যক্তি। তাঁর বিরুদ্ধে ‘জঙ্গি’ সংশ্লিষ্টতার তথ্য পাওয়া গেছে। আরেক ফ্ল্যাটে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে থাকতেন অপর এক ‘জঙ্গি’। অভিযানের আগে মণির পালিয়ে গেলেও তাঁর স্ত্রী রিমু আক্তার দুই শিশুপুত্র ও এক মেয়েকে নিয়ে ফ্ল্যাটেই ছিলেন। তাঁদের আপাতত বাড়ির মালিকের হেফাজতে দেওয়া হয়েছে।
ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আশরাফুল আজীম বলেন, নামাগ্যান্ডায় অভিযান শেষ করে মধ্যগ্যান্ডায় বাড়িটি ঘিরে রাখা হয়।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog