1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:২৩ পূর্বাহ্ন

বিজেপি নেতাকে পিটিয়ে বদলি পুলিশ কর্মকর্তা

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২ জুলাই, ২০১৭
  • ১১৮ বার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : কর্তব্যকাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) পাঁচ কর্মীকে কারাগারে পাঠানো উত্তর প্রদেশ রাজ্যের এক নারী পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়েছে। ওই পুলিশ কর্মকর্তা হলেন ডেপুটি সুপারিনটেনডেন্ট শ্রেষ্ঠা ঠাকুর।

আজ রোববার ভারতীয় গণমাধ্যম দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়, গতকাল শনিবার পুলিশের ডেপুটি সুপারিনটেনডেন্ট শ্রেষ্ঠা ঠাকুরকে বুলন্দশহর জেলার স্যানা সার্কেল থেকে বারিয়াচ জেলায় বদলি করা হয়। আরও বেশ কয়েকজন ডেপুটি সুপারিনটেনডেন্টসহ প্রায় ১৫০ জন পুলিশ কর্মকর্তাকে একসঙ্গে বদলি করা হয়। পুলিশ বিভাগে রাজ্য সরকারের এটাই সবচেয়ে বড় রদবদল।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গত সপ্তাহে পুলিশের কর্তব্যকাজে বাধা দেয় ক্ষমতাসীন বিজেপি কর্মীরা। এ সময় পাঁচ কর্মীকে আটক করে কারাগারে পাঠান ঘটনাস্থলে দায়িত্বরত শ্রেষ্ঠা ঠাকুর। তাঁর এ ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হয়ে পড়ায় সংবাদের শিরোনাম হন পুলিশ কর্মকর্তা শ্রেষ্ঠা। এ ঘটনায় নিয়ে ১১ দলের বিধায়ক ও সাংসদেরা মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সঙ্গে বৈঠক করেন। এরপরেই তাঁকে বদলি করা হলো।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, গত সপ্তাহে জেলার বিজেপি নেতা প্রমোদ কুমার হেলমেট না পরে মোটরসাইকেল চালাচ্ছিলেন। এ সময় পুলিশ কর্মকর্তা শ্রেষ্ঠা ঠাকুর তাঁকে আটক করে আইনভঙ্গের জন্য চড়থাপ্পড় মারেন এবং ২০০ রুপি জরিমানা করেন। ঘটনাস্থলে পুলিশের এই কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ করে দলের অন্য নেতা-কর্মীরা। এতে পুলিশের কর্তব্যকাজে বাধার সৃষ্টি হলে বিজেপির পাঁচ নেতা-কর্মীকে আটক করে কারাগারে পাঠান শ্রেষ্ঠা। এই পুরো ঘটনার ভিডিও চিত্র সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়লে সংবাদের শিরোনামে আসেন ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

শহর বিজেপির সভাপতি মুকেশ ভরদ্বাজ বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন, দলের কর্মীদের গৌরব অক্ষুণ্ন রাখতে ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়েছে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog