1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha : Sardar Dhaka
  2. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
  3. rafiqul@mohajog.com : Rafiqul Islam : Rafiqul Islam
  4. sardar@mohajog.com : Shahjahan Sardar : Shahjahan Sardar
রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ১০:২০ পূর্বাহ্ন

অভিজিৎ রায় হত্যা মামলায় এক জঙ্গি গ্রেপ্তার

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৬ নভেম্বর, ২০১৭
  • ১৪৪ বার

ব্লগার ও বিজ্ঞান বিষয়ক লেখক অভিজিৎ রায় হত্যার ঘটনায় সোহেল ওরফে সাকিব নামে এক জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ও ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট।

রবিবার রাতে রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পুলিশ সূত্র জানায়, সোহেল অভিজিৎ রায় হত্যায় সরাসরি অংশ নিয়েছিল। সে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের (আগের নাম আনসারুল্লাহ বাংলা টিম) সক্রিয় সদস্য।

অভিজিৎ রায় হত্যার সময়কার ঘটনাস্থলের আশপাশ থেকে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করে পুলিশ। এরপর ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ফেসবুক পেজে সোহেলসহ ছয়জনের ছবি দিয়ে তাদের ধরিয়ে দিতে বলা হয়।

ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম ও ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সোহেলকে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন জানিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি বইমেলা থেকে বেরিয়ে বাসায় ফেরার পথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় দুর্বৃত্তদের ধারালো অস্ত্রের কোপে খুন হন অভিজিৎ রায়। এ ঘটনায় তার স্ত্রী রাফিদা আহমেদ বন্যা আহত হন।

২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি রাতে বাংলা একাডেমির একুশে বইমেলা থেকে বের হবার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির কাছে ফুটপাতে কুপিয়ে হত্যা করা হয় অভিজিৎ রায়কে। ওই সময় স্ত্রী বন্যা আহমেদও হামলার শিকার হন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অজয় রায়ের ছেলে অভিজিৎ থাকতেন যুক্তরাষ্ট্রে। বইমেলা অংশ নিতে তিনি দেশে এসেছিলেন। লেখালেখির কারণে জঙ্গিদের হুমকির মুখেও পড়েন এ ব্লগার।

এই ঘটনায় অভিজিতের বাবা শাহবাগ থানায় মামলা করেছেন, তাতে এ পর্যন্ত ৭ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

কারাগারে থাকা আসামিরা হলেন- মো. তৌহিদুর রহমান গামা, শফিউর রহমান ফারাবী, সাদেক আলি মিঠু, আমিনুল মল্লিক, জুলহাস বিশ্বাস, মো. জাফরান হাসান ও মান্না ইয়াহিয়া ওরফে মান্না রাহী।

তবে অভিজিৎ হত্যা মামলায় জামিনে থাকা আবুল বাসার অন্য মামলায় কারাগারে থাকা অবস্থায় মারা গেছেন।

এর আগে প্রকাশিত এসাতটি ভিডিও থেকে মোট ছয়জনকে সন্দেহভাজন খুনি হিসেবে চিহ্নিত করেছে মামলার দায়িত্বরত পুলিশ। তবে এদের নাম–পরিচয় সম্পর্কে এখনো তারা নিশ্চিত হতে পারেনি। ভিডিওর ছবি দেখে কেউ এদের শনাক্ত করতে পারলে তাদের সে সম্পর্কিত তথ্য জানানোর জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 Mohajog