1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha : Sardar Dhaka
  2. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
  3. rafiqul@mohajog.com : Rafiqul Islam : Rafiqul Islam
  4. sardar@mohajog.com : Shahjahan Sardar : Shahjahan Sardar
রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০৪:০৬ অপরাহ্ন

বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম দুই বছরে সর্বোচ্চে

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৭ নভেম্বর, ২০১৭
  • ৩৩২ বার

আন্তর্জাতিক বাজারে গতকয়েকদিন অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দামে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা দেখা গেছে। এদিন পণ্যটির দাম বেড়ে দুই বছরের বেশি সময়ের মধ্যে সর্বোচ্চে পৌঁছেছে।

সৌদি আরবে দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে ১১ রাজকুমারসহ প্রভাবশালীদের ধরপাকড় ও দেশটির যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের ক্ষমতা সংহতকরণের জের ধরে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের বাজারে তেজিভাব দেখা দিয়েছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। খবর রয়টার্স ।

গতকাল যুক্তরাষ্ট্রে ব্রেন্ট ক্রুডের দাম বেড়েছে আগের দিনের তুলনায় দশমিক ৬৯ শতাংশ। দিনশেষে নভেম্বরে সরবরাহের চুক্তিতে প্রতি ব্যারেল ব্রেন্ট ক্রুড বিক্রি হয় ৬২ ডলার ৫০ সেন্টে, যা আগের দিনের তুলনায় ৪৩ সেন্ট বেশি।

২০১৫ সালের জুলাইয়ের পর এদিন পণ্যটি সর্বোচ্চ দামে বিক্রি হয়। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েটের (ডব্লিউটিআই) দাম আগের দিনের তুলনায় দশমিক ৬৩ শতাংশ বেড়েছে।

দিনশেষে নভেম্বরে সরবরাহের চুক্তিতে প্রতি ব্যারেল ডব্লিউটিআই বিক্রি হয় ৫৫ ডলার ৯৯ সেন্টে, যা আগের দিনের তুলনায় ৩৫ সেন্ট বেশি। দিনের শুরুতে পণ্যটির দাম ব্যারেলপ্রতি ৫৬ ডলার ছুঁয়েছিল, যা ২০১৫ সালের জুলাইয়ের পর সর্বোচ্চ। এদিকে দুবাইয়ে ব্রেন্ট ক্রুডের বাজারেও তেজিভাব দেখা গেছে।

দিনশেষে পণ্যটির দাম ব্যারেলপ্রতি ৩৯ সেন্ট বেড়েছে। এদিন দুবাইয়ে ডিসেম্বরে সরবরাহের চুক্তিতে প্রতি ব্যারেল ব্রেন্ট ক্রুড বিক্রি হয় ৬০ ডলার ৫০ সেন্টে, যা আগের দিনের তুলনায় দশমিক ৬৪ শতাংশ বেশি।

কানাডার আর্থিক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান আরবিসি ক্যাপিটাল মার্কেটের এক নোটে বলা হয়, চলতি মাসের শুরু থেকে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের বাজারে তেজিভাব বজায় রয়েছে। সৌদি আরবের বর্তমান পরিস্থিতি এ তেজিভাবকে আরো বেগবান করেছে। সৌদি সরকার সে দেশের প্রভাবশালী ১১ রাজকুমারকে গ্রেপ্তার করেছে। একইসঙ্গে চারজন বর্তমান এবং অজ্ঞাতসংখ্যক সাবেক মন্ত্রীকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নজিরবিহীন এ পদক্ষেপকে অনেকে সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের কনিষ্ঠ পুত্র ও দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী মোহাম্মদ বিন সালমানের ক্ষমতা সংহতকরণের চেষ্টা হিসেবে দেখছেন। আগামী বছর নাগাদ মোহাম্মদ বিন সালমান দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত জ্বালানি প্রতিষ্ঠান সৌদি আরামকোয় বড় ধরনের সংস্কার আনতে আগ্রহী।

প্রভাবশালীদের ধরপাকড়ের পরে এ পরিকল্পনা বাস্তবায়নে তিনি অনেকটা পথ এগিয়ে গেলেন বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। তবে বর্তমান পরিস্থিতির জের ধরে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের বাজারে তেজিভাব দেখা গেলেও সৌদি প্রশাসনের জ্বালানি নীতিতে আশু কোনো পরিবর্তন আসবে না বলে মনে করছে আরবিসি ক্যাপিটাল।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 Mohajog