1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
  2. mohajog@yahoo.com : Daily Mohajog : Daily Mohajog
  3. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ০১:৩৪ অপরাহ্ন

ভুটানকে ৩-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৭
  • ৮১ বার

সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে ফাইনালে ওঠেছে বাংলাদেশ। মঙ্গলবার ৩-০ গোলে ভুটানকে উড়িয়ে দিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশের মেয়েরা।

ডিফেন্ডার আঁখি খাতুনের জোড়া গোল ও বদলি খেলোয়াড় সাজেদা খাতুনের এক গোলে ভুটানকে ৩-০ ব্যবধানে হারিয়ে দেয় বাংলাদেশের নারী খেলোয়াড়েরা।

ঢাকার মাঠে নেপাল ম্যাচের মতোই ভুটানের বিপক্ষে আধিপত্য বিস্তার করে খেলেছে বাংলাদেশের মেয়েরা। ম্যাচের ১২ মিনিটে মার্জিয়ার মাপা কর্নারে মাথা ছুঁয়ে দলকে এগিয়ে নেন ডিফেন্ডার আঁখি খাতুন।

ম্যাচের ২৮ মিনিটে আগের ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় মনিকা চাকমার শট উড়ে যায় বার ঘেঁষে। ৩৭ মিনিটে আনুচিং মগিনিকে গোল পেতে দেয়নি এই বারই।
প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে আনুচিং ও তহুরার দুই দফা আক্রমণ ব্যর্থ না হলে ২-০’র বেশি ব্যবধান নিয়ে বিরতিতে যেতে পারতো স্বাগতিকরা।

দ্বিতীয়ার্ধের ১১ মিনিটের মধ্যেই ভুটানের জালে দ্বিতীয়বারের মতো বল জড়ায় বাংলাদেশ। ৫৬ মিনিটে মার্জিয়ার আরেকটি কর্নারে ব্যাকহিল করে নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করেন আঁখি।

৬১তম মিনিটে অল্পের জন্য তৃতীয় গোল থেকে বঞ্চিত হয় স্বাগতিকরা। অধিনায়ক মারিয়া মান্ডার দূরপাল্লার শট ফিরে যায় বারে লেগে।

বাংলাদেশের তৃতীয় গোলটি সাজেদা খাতুনের। ৮০ মিনিটে গোলটি করেন তহুরা খাতুনের পরিবর্তে মাঠে নামা এই ফরোয়ার্ড।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহী মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়াম মুখোমুখি হয় দুই দল।

এর আগের ম্যাচে নেপালের জালে ছয়বার বল পাঠিয়েছে তারা। তহুরা হ্যাটট্রিক করেছেন। আনুচিং মুগিনি করেছেন জোড়া গোল।

তবে ভুটানের শুরুটা হয়েছে পরাজয় দিয়ে। প্রথম ম্যাচে ভারতের কাছে ৩-০ গোলে হেরেছে তারা।

টি-১০ এ চ্যাম্পিয়ন সাকিবের দল, পারলেন না তামিম
টি-টেন লিগের ফাইনালে মুখোমুখি হয়ে যেতে পারতেন বাংলাদেশের দুই তারকা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল। কিন্তু সেমিফাইনাল থেকেই বিদায় নিতে হয়েছে তামিমের পাখতুনকে। আর শুধু ফাইনালে গিয়েই থেমে থাকেনি সাকিবের কেরালা কিংস। জিতে নিয়েছে শিরোপাও। পাঞ্জাবি লিজেন্ডসের বিপক্ষে ৮ উইকেটের সহজ জয় দিয়ে টি-টেন লিগের প্রথম শিরোপা জিতেছে কেরালা কিংস। যদিও ব্যাটে-বলে গোটা টুর্নামেন্টেই খুব সুবিধা করতে পারেননি।

রবিবার রাতে শারজাহতে ফাইনালে পাঞ্জাবি লিজেন্ডসকে ৮ উইকেটে হারিয়েছে কেরালা কিংস।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ১০ ওভারে ১২০ রান তোলে পাঞ্জাবি লিজেন্ডস। ৫টি করে চার ও ছক্কায় ৩৪ বলে ৭০ করেন লুক রনকি। ১৪ বলে ২৬ শোয়েব মালিক।

বল হাতে প্রথম ওভারে ১০ রান দেন সাকিব। পরের ওভারে গুনেছেন ২১। কেরালার লিয়াম প্লাঙ্কেট ও রায়াদ এমরিট নেন একটি করে উইকেট।

ওয়েন মর্গ্যানের ব্যাটিং তাণ্ডবে বড় রান তাড়ায়ও কেরালা জিতে যায় ২ ওভার বাকি রেখেই। ৫ চার ও ৬ ছক্কায় ২১ বলে ৬৩ করেন কেরালা অধিনায়ক মর্গ্যান। ৫ ছক্কায় ২৩ বলে ৫২ রানে অপরাজিত ছিলেন গোটা টুর্নামেন্টেই দুর্দান্ত খেলা পল স্টার্লিং। সাকিবকে নামতে হয়নি ব্যাটিংয়ে।

ফাইনালের আগে একই দিন হয়েছে দুটি সেমি-ফাইনাল। প্রথম সেমি-ফাইনালে কেরালা কিংসের জয়েও ম্যাচ সেরা ছিলেন অধিনায়ক মর্গ্যান। মারাঠা অ্যারাবিয়ান্সকে ৫ উইকেটে হারিয়ে ফাইনালে ওঠে কেরালা কিংস।
প্রথম দুই ওভারেই ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলা মারাঠা ১০ ওভারে তোলে ৯৭। ডোয়াইন ব্রাভো করেন ১৯ বলে ২৭। সোহেল তানভির নেন ৩ উইকেট, প্লাঙ্কেট ও এমটি দুটি করে। বোলিং করার সুযোগ পাননি সাকিব।

রান তাড়ায় ৩২ বলে ৫৩ করেন মর্গ্যান। সাকিব ব্যটিংয়ে নামলেও রান আউট হন কোনো বল না খেলেই। কেরালা জিতে যায় ৫ বল বাকি রেখে।

দ্বিতীয় সেমি-ফাইনালে তামিম ইকবালের পাখতুনস হেরে যায় পাঞ্জাবি লিজেন্ডসের কাছে।

শুরুটা দারুণ করলেও তামিম বড় করতে পারেননি ইনিংস। আউট হন ৯ বলে ১৭ রান করে।

তামিমের উদ্বোধনী জুটির সঙ্গী আহমেদ শেহজাদ ২৯ বলে করেন ৫৮। ৫ ছক্কায় ১৭ বলে ৪১ করেন শহিদ আফ্রিদি। ১০ ওভারে পাখতুনস তোলে ১২৯ রান।

বিশাল এই রান তাড়ায়ও অনায়াসে জিতে যায় পাঞ্জাবি লিজেন্ডস। ৩৪ বলে অপরাজিত ৬০ করেন লুক রনকি। ১৭ বলে অপরাজিত ৪৮ শোয়েব মালিক। মাত্র ১ উইকেট হারিয়েই জিতে যায় তারা।

তবে ফাইনালে পাঞ্জাবি লিজেন্ডস পেরে ওঠেনি কেরালা কিংসের কাছে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog