1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha : Sardar Dhaka
  2. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
  3. rafiqul@mohajog.com : Rafiqul Islam : Rafiqul Islam
  4. sardar@mohajog.com : Shahjahan Sardar : Shahjahan Sardar
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৭:০২ পূর্বাহ্ন

ভারতের কারাগার থেকে পালিয়েছে দুই বাংলাদেশি!

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০১৮
  • ১৬৬ বার

কলকাতার একটি কারাগার থেকে পালিয়ে গেছেন দুই বাংলাদেশি। এই কারাগারটি দীর্ঘদিন যাবৎ ‘আলীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার’ হিসাবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ঘটনার জেরে আলীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার ছাড়িয়ে ভারতজুড়ে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। এই ঘটনায় সংশোধনাগারের নিরাপত্তা নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

রবিবার সকালে সংশোধনাগারে বন্দি গণনার সময় বিষয়টি ধরা পড়ে। আর তখনি তাদের খোঁজাখুঁজি শুরু হয়। ‘আলীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার’ সহ পশ্চিমবঙ্গ জুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। দুই বাংলাদেশি বিচারাধীন বন্দি ছিলেন। তাদের সঙ্গে এক ভারতীয় নাগরিকও পালিয়েছেন বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ জানিয়েছে, দুই বাংলাদেশি বন্দি হলেন মোহাম্মদ ফারুক হাওলাদার এবং ফেরদৌস শেখ ওরফে রানা। এর মধ্যে ফারুক ২০১৩ সালে বেআইনি অস্ত্র পাচার ও ডাকাতি মামলায় গ্রেপ্তার হয়েছেন। আর ফেরদৌস বেআইনি অনুপ্রবেশ ও ডাকাতির মামলায় বিচারাধীন আছেন।

এ ছাড়া পালিয়ে যাওয়া ভারতের নাগরিক ইমন চৌধুরী বন্দি ছিলেন ২০১৪ সালের একটি অপহরণ মামলায়।

পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গতকাল শনিবার গভীর রাতে আলীপুর সংশোধনাগারের পিছন দিকের ছয় নম্বর ওয়াচ টাওয়ার সংলগ্ন উঁচু পাঁচিল টপকে তিন বন্দি পালিয়ে যান। পাঁচিলের ওপাশের রয়েছে আদি গঙ্গা।

পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ জানিয়েছে, বন্দিরা তাদের চাদরকে দড়ি হিসেবে ব্যবহার করেছেন। চাদরের একপ্রান্তে লোহার রড লাগিয়ে তা বাঁকিয়ে পাঁচিলের কাঁটা তারে বিঁধে ফেলা হয়। তারপর তাতে করে পাঁচিলের উপরে উঠে যান আসামিরা।

পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ আরো জানিয়েছে, পাঁচিল ডিঙ্গিয়ে ওপারে থাকা পেয়ারা গাছ বেয়ে নিচে নেমে পালিয়ে যান তিনজন। পাঁচিলের পাশ থেকে চাদর ও বেঁকানো লোহার রড উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় তদন্ত শুরু হয়েছে। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, বন্দিরা দীর্ঘদিন ধরেই এই পরিকল্পনা করছিলেন। এরই মধ্যে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন থানায় বন্দি পালিয়ে যাওয়ার বিষয়টি জানানো হয়েছে।

পুলিশ আলীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারের নিরাপত্তাকর্মীদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে। সংশোধনাগারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে স্লিফার ডগ। সংশোধনাগারে গেছেন কলকাতার লালবাজার গুণ্ডা দমন শাখার কর্মকর্তারাও। এই ঘটনায় পশ্চিমবঙ্গ জুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে।

পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন থানার পাশাপশি বিশেষ করে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী থানাগুলোকে বন্দি পালানোর বিষয়ে কড়া নজর রাখার বার্তা দেওয়া হয়েছে। শুরু হয়েছে তল্লাশি অভিযানও।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 Mohajog