1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
  2. mohajog@yahoo.com : Daily Mohajog : Daily Mohajog
  3. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০৯:০৬ অপরাহ্ন

লালমনিরহাটে নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি, লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৪ জুলাই, ২০১৬
  • ৮৩ বার

ভারী বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে তিস্তা, ধরলা ও সানিয়াজানসহ লালমনিরহাটের সব নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে সৃষ্ট বন্যায় পানি বন্দি হয়ে পড়েছে লক্ষাধিক মানুষ।

রোববার (২৪ জুলাই) সকাল ৯টায় তিস্তা ব্যারাজে পানি প্রবাহ রেকর্ড করা হয়েছে ৫২ দশমিক ৪৭ সেন্টিমিটার। যা (স্বাভাবিক ৫২ দশমিক ৪০ সেন্টিমিটার) বিপদসীমার সাত সেন্টিমিটার ওপরে।

দেশের সর্ববৃহৎ সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারাজ পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস সতর্কীকরণ কেন্দ্র জানায়, শনিবার (২৩ জুলাই) সন্ধ্যা থেকে তিস্তার পানি বেড়ে রোববার ৬টায় ৫২ দশমিক ৫৫ সেন্টিমিটার ওপরে ওঠে যায়। যা বিপদ সীমার ১৫ সেন্টিমিটার ওপরে। এরপর ধীরে ধীরে পানি কমে যায়। সকাল ৯টায় তিস্তার পানি প্রবাহ রেকর্ড করা হয় ৫২ দশমিক ৪৭ সেন্টিমিটার।

দেশের সর্ববৃহৎ সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারাজের ৪৪টি গেট একই সঙ্গে খুলে পানি প্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে বলেও সূত্রটি জানিয়েছে।

এদিকে তিস্তা, ধরলা, সানিয়াজানসহ জেলার সব নদ-নদীর পানি বিপদ সীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে এসব নদীর তীরবর্তী নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। নতুন নতুন এলাকা বন্যায় প্লাবিত হয়ে জেলার পাঁচটি উপজেলার প্রায় ১৫টি ইউনিয়নের ২০ হাজার পরিবারের লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

পানির তোড়ে ইতোমধ্যে সদর উপজেলার তিস্তার বাম তীরের রাজপুর বাঁধটির প্রায় এক কিলোমিটার বিলীন হয়ে গেছে। এছাড়া ধরলার পানির প্রচণ্ড স্রোতে সদর উপজেলার মোঘলহাট ইটাপোতা বাঁধটিও হুমকির মুখে পড়েছে।

তিস্তা ব্যারাজের ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান , উজানের ঢল আর ভারি বর্ষণে তিস্তার পানি বিপদসীমার সাত সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। আর তাই তিস্তা ব্যারাজের ৪৪টি গেট খুলে পানি প্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে।

লালমনিরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বক্কর সিদ্দিক , স্থানীয়দের সঙ্গে নিয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ড ইটাপোতা বাঁধটি রক্ষার চেষ্টা চালাচ্ছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের লোকজন ও স্থানীয়রা দিনরাত বাঁধটি পাহারা দিচ্ছে।

লালমনিরহাট জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা ইদ্রীস আলী , ২০ হাজার পরিবার পানি বন্দি হয়ে পড়েছে। প্রতিনিয়ত পানি বন্দির সংখ্যা বাড়ছে। তাদের মধ্যে ত্রাণ সহায়তা পৌঁছানো হচ্ছে। সেই সঙ্গে পানি বন্দিদের সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog