1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
  2. mohajog@yahoo.com : Daily Mohajog : Daily Mohajog
  3. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:৩৫ অপরাহ্ন

৯ বছরে অর্থমন্ত্রীর সম্পদ বেড়েছে ৮৩ লাখ টাকা

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৮ নভেম্বর, ২০১৬
  • ১৬১ বার

প্রতিবেদক : গত ৯ বছর অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনকালে আবুল মাল আবদুল মুহিতের ৮৩ লাখ ৫৮ হাজার ৫০ টাকার সম্পদ বেড়েছে। সোমবার নিজ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনলাইনে আয়কর বিবরণী (রিটার্ন) দাখিলের সময় অর্থমন্ত্রী নিজেই সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

আয়কর বিবরণীতে দেখা যায়, মন্ত্রী ২০১৬-১৭ করবর্ষে ২ লাখ ১২ হাজার ৬১১ টাকা কর দিয়েছেন। এই করবর্ষে কর প্রদানে ৩৪ লাখ ২৫ হাজার ৪২ টাকা আয়ের মধ্যে করযোগ্য আয় ছিল প্রায় ২০ লাখ ৫৯ হাজার টাকা।

২০০৮ সালের ৩০ জুন শেষ হওয়া বছরে অর্থমন্ত্রীর আয়ের স্থিতি ছিল ১ কোটি ১৪ লাখ ৮৩ হাজার ৩৬ টাকা। ৯ বছর পর এই স্থিতি দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৯৮ লাখ ৪১ হাজার ৮৬ টাকা।

বছর বছর জনসম্মুখে সম্পদের হিসাব দিয়ে আসা অর্থমন্ত্রী এক প্রশ্নে বলেন, “সম্পদ ও আয়কর ইত্যাদি খুবই ব্যক্তিগত বিষয়। কেউ চাইলে তা নিজে প্রকাশ করতে পারেন। আমি কাউকে আহ্বান করতে পারি না। ট্যাক্স আইন অনুসারেও পারি না।

“মন্ত্রীরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে সম্পদের হিসাব বিবরণী জমা দেন। প্রয়োজন মনে করলে কেউ সেখান থেকে মন্ত্রীদের সম্পদের হিসাব চাইতে পারেন। প্রধানমন্ত্রী ইচ্ছা করলে সেটা প্রকাশ করবেন।”

২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় যাওয়ার পর মন্ত্রীদের সম্পদের হিসাব প্রকাশের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী মুহিত। তবে পরে সেই অবস্থান থেকে সরে আসেন তিনি।

অনলাইনে আয়কর বিবরণী দাখিলের ৫ মিনিটের মাথায় দাখিলের সনদ পাওয়া যায়, যা প্রিন্ট করে নেন মুহিত।

অনলাইনে বিবরণী দাখিল অনেক সহজ কাজ মন্তব্য করে তিনি বলেন, “এখানে আমার তথ্যগুলো আমাকে দিতে হবে। বাকি কাজ সফটওয়ার নিজে থেকেই করে নেয়।”

যথাযথ কাগজপত্র ছাড়াই ঋণ দেওয়ার একটা ঘটনা উল্লেখ করে এক সাংবাদিক প্রশ্ন করলে জববে মন্ত্রী বলেন, “আমরা এগুলোর বিরুদ্ধে খুবই স্ট্রিক্ট। অনেক সময় ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদে যারা থাকেন, তাদের পরিচিতরা এই ধরনের ঋণ পেয়ে থাকে।

“এ জন্য আমরা রাজনৈতিক নিয়োগের পরিবর্তে দক্ষ লোকজনকে নিয়োগ দিচ্ছি। এর মধ্যেও যে ‘ব্যাড হেড’ চলে আসে না, তা নয়।”

চলমান অর্থবছরের রাজস্ব আদায়ের হার সম্পর্কে জানতে চাইলে এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান বলেন, রাজস্ব আদায়ের হার ঊর্ধ্বমুখী। প্রবৃদ্ধি প্রায় ১৭ শতাংশ। আয়কর, শুল্ক, ভ্যাট তিন বিভাগেই প্রবৃদ্ধি হচ্ছে।

বাংলাদেশে করদাতার সংখ্যা এ বছর ২৫ লাখে উন্নীত করতে চান এনবিআর চেয়ারম্যান।

নিজের সাম্প্রতিক ভিয়েতনাম সফরের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, “সেখানে যাওয়ার পর বুঝতে পারি, আমাদেরকে আরও অনেক দূর যেতে হবে। সেখানে ৯১ মিলিয়ন মানুষের মধ্যে ৪৯ মিলিয়ন কর দেয়।”

৯ ডিসেম্বর থেকে ভ্যাট সপ্তাহ পালন করা হবে বলেও জানান তিনি।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog