1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
  2. mohajog@yahoo.com : Daily Mohajog : Daily Mohajog
  3. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১০:১৩ পূর্বাহ্ন

স্থায়ী নিয়োগ না পাওয়া দুই বিচারকের আপিল শুনানি একসঙ্গে

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭
  • ৮৪ বার

প্রতিবেদক : হাই কোর্টে বিচারক হিসেবে স্থায়ী নিয়োগ না পেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হওয়া বিচারপতি এ বি এম আলতাফ হোসেন ও বিচারপতি ফরিদ আহমদ শিবলীর আপিল শুনানি হবে একসঙ্গে। বিচারপতি ফরিদ আহমদ শিবলীর আবেদন শুনানির জন্য গ্রহণ করে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ রোববার এ আদেশ দেয়।

আদালতে আবেদনকারী পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

পরে মনজিল মোরসেদ সাংবাদিকদের বলেন, সাবেক বিচারক এ বি এম আলতাফ হোসেনের আবেদনও আপিল বিভাগে শুনানির জন্য রয়েছে। ওই মামলার সঙ্গেই বিচারপতি শিবলীর আবেদনের শুনানি হবে বলে আপিল বিভাগ সিদ্ধান্ত দিয়েছে।

“বিচারপতি আলতাফ হোসেনের মামলা যেদিন কার্যতালিকায় আসবে সেদিনই দুই আবেদনের ওপর শুনানি হবে।”

বিচারপতি এ বি এম আলতাফ হোসেন

২০১২ সালের ১৪ জুন এবিএম আলতাফ হোসেনসহ মোট ছয়জনকে অতিরিক্ত বিচারক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। অতিরিক্ত বিচারপতি হিসাবে দুই বছর মেয়াদ শেষ হওয়ার পর আলতাফকে বাদ দিয়ে অন্য পাঁচ জনকে ২০১৪ সালের ৯ জুন স্থায়ী করা হয়।

এরপর স্থায়ী নিয়োগ পেতে হাই কোর্টের নির্দেশনা চেয়ে ওই বছরের ১২ অগাস্ট রিট আবেদন করেন এবিএম আলতাফ হোসেন।

এদিকে তাকে স্থায়ী বিচারক হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে ওইবছর ২৩ জুলাই আলাদা রিট আবেদন করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোহাম্মদ ইদ্রিসুর রহমান।

ওই বছরের ২৪ সেপ্টেম্বর হাই কোর্ট দুটি রিটই খারিজ করে দেয়। এর বিরুদ্ধে আপিলের অনুমিতে চেয়ে আবেদন করেন আলতাফ।

২০১৪ সালের ৬ নভেম্বর তার লিভ টু আপিল মঞ্জুর করে (আপিলের অনুমতি) সাতজনকে অ্যামিকাস কিউরি নিয়োগ দেয় আপিল বিভাগ।

এই সাত আইনজীবী হলেন- ড. কামাল হোসেন, ব্যারিস্টার রফিক-উল হক, এম আমীর-উল ইসলাম, মাহমদুল ইসলাম (পরে প্রয়াত), আব্দুল ওয়াদুদ ভূইয়া, আজমালুল হোসেন কিউসি ও এএফ হাসান আরিফ।

বর্তমানে আপিলটি শুনানির অপেক্ষায় রয়েছে।

বিচারপতি ফরিদ আহমদ শিবলী

ফরিদ আহমদ শিবলীসহ ১০ জন ২০১৫ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি দুই বছরের জন্য অতিরিক্ত বিচারক হিসেবে হাই কোর্টে নিয়োগ পান। এরপর চলতি বছর ৭ ফেব্রুয়ারি আটজনকে স্থায়ী বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দেন রাষ্ট্রপতি।

ওই দশজনের মধ্যে বিচারপতি জে এন দেব চৌধুরী মারা মারা গেছেন। আর বাদ পড়েছেন ফরিদ আহমদ শিবলী।

স্থায়ী নিয়োগ না দেওয়ার সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে গত ১২ ফেব্রুয়ারি হাই কোর্টে রিট আবেদন করেন বিচারপতি শিবলী।

তাকে আপিল বিভাগে যাওয়ার পরামর্শ দিয়ে ওইদিনই আবেদটির নিষ্পত্তি করে দেয় বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি জে বি এম হাসানের হাই কোর্ট বেঞ্চ।

সে অনুসারে ১৫ ফেব্রুয়ারি আপিল বিভাগে আবেদন করেন বিচারপতি শিবলী।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog