1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
  2. mohajog@yahoo.com : Daily Mohajog : Daily Mohajog
  3. nafij.moon@gmail.com : Nafij Moon : Nafij Moon
রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ১০:০৬ পূর্বাহ্ন

জনদুর্ভোগের জন‌্য নৌমন্ত্রীর ‘দুঃখ প্রকাশ’

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১ মার্চ, ২০১৭
  • ৪৩ বার

প্রতিবেদক :  আন্দোলনরত পরিবহন শ্রমিকদের সঙ্গে আলোচনার মধ‌্যেই এক ট্রাক চালকের ফাঁসির রায়ের খবরে ‘পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গিয়েছিল’ মন্তব‌্য করে ধর্মঘটে ব‌্যাপক জনদুর্ভোগের জন‌্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন নৌমন্ত্রী শাজাহান খান।

দেশের শ্রমিক সংগঠনগুলোর শীর্ষ ফোরাম বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের এই কার্যকরী সভাপতি বলেছেন, পরিবহন শ্রমিকদের দাবির বিষয়টি ‘আইনগতভাবে’ সমাধানের জন‌্য আগ্রসর হবেন তারা। এ বিষয়ে সরকারের কাছ থেকে ‘সহযোগিতার আশ্বাসও’ তারা পেয়েছেন।

বুধবার সকালে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ও আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের সঙ্গে বৈঠকের পর দুপুরে মতিঝিলে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের সঙ্গে বৈঠক করে সরকারের আশ্বাস পাওয়ার কথা জানান নৌমন্ত্রী।

পরে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি পরিবহন মালিক শ্রমিকদের যানবাহন চলাচল শুরুর আহ্বান জানান এবং তার পরপরই ঢাকার বিভিন্ন টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লার বাস চলতে শুরু করে।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলনে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গাও উপস্থিত ছিলেন, যিনি বাস ও ট্রাকমালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন সমিতির সভাপতি।

ধর্মঘটের বিষয়টি কোনো সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত ছিল না এবং রায়ের খবরে ক্ষুব্ধ চালকরা ‘নিজেরাই’ গাড়ি চালানো থেকে বিরত ছিলেন দাবি করে শাজাহান খান বলেন, “স্বাভাবিকভাবে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ব্যাপক জনদুর্ভোগের সৃষ্টি হয়। এ অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির কারণে আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত।”

মানিকগঞ্জে এক সড়ক দুর্ঘটনায় তারেক মাসুদ ও মিশুক মুনীরসহ পাঁচজন নিহতের ঘটনায় গত মাসের শেষ দিকে জামির হোসেন নামের এক বাস চালকের যাবজ্জীবন সাজার রায় হয়। এর প্রতিবাদে খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় গত রবিবার শুরু হয় অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট।

সোমবার দুপুরে প্রশাসনের আশ্বাসে কর্মসূচি প্রত্যাহারের ঘোষণা এলেও ওইদিন সাভারে ট্রাকচাপা দিয়ে এক নারীকে হত্যার দায়ে মীর হোসেন নামের এক চালকের ফাঁসির রায় হলে পরিবহন শ্রমিক নেতারা অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির কর্মসূচি দেন।

মঙ্গলবার সকাল থেকে সেই ধর্মঘটে সারা দেশে সড়ক যোগাযোগ ব‌্যবস্থা কার্যত অচল হয়ে পড়ে। চিকিৎসাসহ জরুরি প্রয়োজনে এক জেলা থেকে অন‌্য জেলায় যেতে না পেরে বিপাকে পড়ে বহু মানুষ। পণ‌্য পরিবহণ বন্ধ থাকায় ক্ষতির মুখে পড়েন ব‌্যবসায়ীরা।

বুধবার ঢাকায় নগর পরিবহনের গাড়িও বন্ধ রাখা হলে ভোগান্তি চরমে পৌঁছায়। যাত্রাবাড়ীতে রাস্তা আটকে রিকশা ও অটোরিকশা থেকে যাত্রীদের নামিয়ে দিতে দেখা যায়। গাবতলীতে পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষে জড়ায় পরিবহন শ্রমিকরা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব‌্যে শাজাহান খান বলেন, দেশে সড়ক পরিবহন খাতে ‘চলমান অচলাবস্থা সম্পর্কে জনমনে বিভ্রান্তি’ সৃষ্টি হয়েছে এবং সে বিষয়ে শ্রমিক ও মালিকদের বক্তব্য স্পষ্ট করা দরকার বলে তিনি মনে করছেন।

“সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা আইনের ঊর্ধ্বে নয়। আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আপনারা জানেন যে, ২০১১ সালের ১৩ অগাস্ট মানিকগঞ্জ মহাসড়কে এক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশের বিশিষ্ট ব‌্যক্তিত্ব তারেক মাসুদ ও মিশুক মুনীর নিহত হওয়ায় আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছিলাম।

“আমরা আজও বলতে চাই, সড়ক দুর্ঘটনায় কোনো মৃত্যু কারও কাম্য নয়, আমাদেরও নয়।”

ওই মামলায় চুয়াডাঙ্গা ডিলাক্সের চালকের যাবজ্জীবন সাজার পর দেশের দক্ষিণাঞ্চলে পরিবহন শ্রমিকদের কর্মবিতরিতে যাওয়ার বিষয়টি তুলে ধরে নৌমন্ত্রী বলেন, সোমবার মালিক-শ্রমিক নেতাদের নিয়ে বৈঠক চলাকালেই ঢাকার আদালতে ট্রাক চালককে ফাঁসির রায়ের খবর আসে।

“ওই সংবাদ দ্রুত দেশব‌্যাপী ছড়িয়ে পড়ে। বিভিন্ন জেলার মালিক ও শ্রমিক নেতারা আমাদেরকে গাড়ি বন্ধ হয়ে যাওয়ার খবর জানাতে থাকে। তখন বিষয়টি আমাদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। এ সময় উক্ত সভায় গাড়ি চালানোর গৃহীত সিদ্ধান্ত ভণ্ডুল হয়ে যায়।”

বুধবার প্রথম আলোর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, “যাত্রীদের জিম্মি করে আদালতের রায় বদলানোর কৌশল নিয়েছে পরিবহন মালিক-শ্রমিক সংগঠনগুলো। এবার এই কৌশল বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত এল সরকারের একজন মন্ত্রীর সরকারি বাসভবনে বসে। আর এই সিদ্ধান্ত প্রক্রিয়ায় সরাসরি জড়িত একজন মন্ত্রী, একজন প্রতিমন্ত্রী এবং সরকার-সমর্থক পরিবহনমালিক-শ্রমিক সংগঠনের নেতারা।”

নৌমন্ত্রীর বাসায় ওই বৈঠকে প্রতিমন্ত্রী রাঙ্গাসহ প্রায় ৫০ জন মালিক ও শ্রমিক নেতা উপস্থিত ছিলেন বলে প্রথম আলোর তথ‌্য।

ওই প্রতিবেদনের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করে সাংবাদিকরা মন্ত্রীর কাছে জানতে চান, তার বাসায় কেন ওই বৈঠক ডাকা হয়েছিল।

জবাবে শাজাহান খান বলেন, “আমিতো লিখিত বক্তব্যে বলেছি, ২৭ তারিখের বৈঠক করেছি সমাধানের জন্য, ধর্মঘট ডাকার জন্য নয়।”

জনদুর্ভোগের জন‌্য দুঃখ প্রকাশ করে তিনি বলেন, “আমরা লক্ষ্য করছি, সড়ক পরিবহনের এ অচলাবস্থাকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন মহল বিভ্রান্তিকর ও উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে পরিস্থিতি ঘোলাটে করার চেষ্টা করছে এবং সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের জনগণের মুখোমুখি দাঁড় করানো চেষ্টা করছেন।”

দুর্ঘটনার কারণে ফাঁসি বা যাবজ্জীবন সাজা হওয়ার আশঙ্কায় পরিবহন শ্রমিকরা নিরাপত্তার অভাব বোধ করছেন বলেও মন্তব‌্য করেন এই শ্রমিক নেতা।

চুয়াডাঙ্গা ডিলাক্স ও গ্রিন লাইনের দুর্ঘটনার দুই ঘটনায় ৩২ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণের দুটি মামলা হাই কোর্টে থাকার কথা জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, “আমাদের আশঙ্কা, এ দুটি মামলাও আমাদের বিরুদ্ধে যাবে। সব বিষয় বিবেচনায় নিয়েই আমাদের এগোতে হবে।”

মালিক-শ্রমিকদের বাস্তব সমস্যা উপলব্ধি করে সবার কাছে ‘সমস্যা নিরসনে সুপরামর্শ’ চান শাজাহান খান।

সড়ক পরিবহন মন্ত্রী ও আইনমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, “মন্ত্রীদ্বয় মালিক-শ্রমিকদের সমস্যার বাস্তব উপলব্ধি করেছেন। তারা আমাদের আশ্বস্ত করেছেন, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আমরা আইনগতভাবে সমস্যা সমাধানে আগ্রসর হব। সেক্ষেত্রে সরকার আইনানুগ সম্ভাব্য সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।”

পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, “মন্ত্রীদ্বয়ের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে দেশের সকল সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের চলমান অচলাবস্থা নিরসনকল্পে যান চলাচলের জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।”

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন সমিতি, বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স অ‌্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ ট্রাক ও কভার্ডভ্যান মালিক সমিতি এবং বাংলাদেশ শ্রমিক ফেডারেশনের নেতৃবৃন্দ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog