1. sardardhaka@yahoo.com : adminmoha :
সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০৮:০৮ অপরাহ্ন

শনিবার ঢাবির ৫০তম সমার্বতন 

মহাযুগ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২ মার্চ, ২০১৭
  • ২৪৭ বার

প্রতিবেদক :  শিক্ষা জীবনের বর্ণিল সময়ের চূড়ান্ত আয়োজনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৮ হাজার স্নাতক শনিবার মিলিত হচ্ছেন ঐতিহ্যবাহী এ শিক্ষায়তনের ৫০তম সমার্বতনে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। কানাডার ইউনিভার্সিটি অব ওয়েস্টার্ন অন্টারিওর প্রেসিডেন্ট ও উপাচার্য অধ্যাপক অমিত চাকমা এবারের সমাবর্তন বক্তা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরাতন সিনেট ভবনে বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক জানান, মোট ১৭ হাজার ৮৭৫ জন স্নাতক এবারের সমাবর্তনে অংশ নিচ্ছেন। এছাড়া ৮০ জন কৃতি শিক্ষার্থীর মধ‌্যে ৯৪টি স্বর্ণপদক এবং ৬১ জনকে পিএইচডি ও ৪৩ জনকে এমফিল সনদ দেওয়া হবে এবারের সমাবর্তনে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা কেন্দ্রের খেলার মাঠে অনুষ্ঠেয় এ অনুষ্ঠানে অধ্যাপক অমিত চাকমাকে দেওয়া হবে সম্মানসূচক ডক্টর অব সায়েন্স ডিগ্রি।

উপাচার্য আরেফিন সিদ্দিক বলেন, “অমিত চাকমা বাংলাদেশের মানুষ, পার্বত্য চট্রগ্রামের মানুষ। তিনি বাংলাদেশের মানুষ হয়েও কানাডায় বড় অবস্থানে আছেন। বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের শেষ প্রান্তে শিক্ষার্থীরা যাতে বিদেশে বড় পদে থাকা ‘দেশের মানুষকে’ দেখে ও তার বক্তব্য শুনে অনুপ্রাণিত হয় সেজন্যই তাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।”

অধ্যাপক অমিত চাকমা অধ্যাপক অমিত চাকমা অধ‌্যাপক অমিত উচ্চমাধ্যমিক পর্যন্ত এ দেশেই লেখাপড়া করেছেন জানিয়ে উপাচার্য বলেন, “তরুণ প্রজন্মকে অণুপ্রাণিত করতে চাই, ভালো লেখাপড়া করলে, যোগ্যতা অর্জন করলে পৃথিবীর যে কোনো প্রান্তে গিয়ে তারা গুরুত্বপূর্ণ অবস্থান নিতে পারে।”
অমিত চাকমার শৈশব কেটেছে বাংলাদেশে। ১৯৫৯ সালে রাঙামাটি জেলায় এক চাকমা পরিবারে তার জন্ম। সেখানে কাপ্তাই বাঁধ হওয়ার পর অনেক পাহাড়ি পরিবারের মতো তাদেরও সরে যেতে হয়। পরে তিনি বিদেশে পাড়ি জমান।

আলজেরিয়ার পেট্রোলিয়াম ইন্সটিটিউট থেকে ১৯৮২ সালে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং শেষ করে অমিত চাকমা ব্রিটিশ কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৮৪ সালে ফলিত বিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর পাস করেন। পরে ১৯৮৭ সালে রাসায়ন প্রকৌশলে পিএইচডি ডিগ্রি নেন।

কানাডার ইউনিভার্সিটি অব ওয়েস্টার্ন অন্টারিওর প্রেসিডেন্ট ও উপাচার্যের দায়িত্বে তিনি আছেন ২০০৯ সাল থেকে। এর আগে ইউনির্ভাসিটি অব ওয়াটারলুতেও তিনি অধ্যাপনা করেছেন।

৫৮ বছর বয়সী অমিত চাকমার গবেষণার বিষয় ছিল প্রাকৃতিক গ্যাস প্রকৌশল এবং পেট্রোলিয়াম বর্জ্য ব্যবস্থাপনা। জ্বালানি ব্যবস্থাপনা নিয়ে বিখ‌্যাত জার্নালগুলোতে তার শতাধিক প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে।

গবেষণা ও শিক্ষা ক্ষেত্রে অবদানের জন্য অমিত চাকমা কানাডা সরকারের একাধিক পুরস্কার পেয়েছেন।

সুত্র : বিডি নিউজ

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Mohajog